তুলনামূলক কম মূল্যে শক্তিশালী ব্যাটারি সহ লঞ্চ হল Vivo Y12s

ঢাকা, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

তুলনামূলক কম মূল্যে শক্তিশালী ব্যাটারি সহ লঞ্চ হল Vivo Y12s

খোলা কাগজ ডেস্ক ১:৩৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০২০

print
তুলনামূলক কম মূল্যে শক্তিশালী ব্যাটারি সহ লঞ্চ হল Vivo Y12s

গত বছর জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড Vivo তাদের ওয়াই সিরিজের Vivo Y12 স্মার্টফোনটি বাজারে এনেছিল। তারপর তারা এর S-ভ্যারিয়েন্ট বাজারে আনার কথা ঘোষণা করে। চলতি বছরের জুলাই মাসে Vivo Y12s কে গুগল প্লে কনসোলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তবে আবার চীনা স্মার্টফোন কোম্পানিটি Vivo Y12s ফোনটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে লঞ্চ করেছে। হংকং, ইন্দোনেশিয়া সহ এশিয়ার একাধিক দেশে ফোনটি পাওয়া যাবে। ভিভো ওয়াই১২এস ফোনের প্রধান প্রধান ফিচার হল ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ, ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি, মিডিয়াটেক হেলিও পি৩৫ প্রসেসর। 

Vivo Y12s এর দাম

Vivo Y12s ফোনটির মূল্য শুরু হয়েছে ১,০৯৮ হংকং ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১০,৫৪০ টাকা) থেকে। এই দাম ফোনটির ৩ জিবি র‍্যাম ও ৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। যদিও ফোনটির ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের দাম জানা যায়নি। ফোনটি ফ্যান্টম ব্ল্যাক ও গ্লেসিয়ার ব্লু কালার বিকল্পে পাওয়া যাবে। ভারতে ভিভো ওয়াই১২এস কবে আসবে তা জানা যায়নি।

 

Vivo Y12s এর ফিচার ও স্পেসিফিকেশন

Vivo Y12s স্মার্টফোনটি ৬.৫১ ইঞ্চির এইচডি প্লাস ডিউড্রপ নচ ডিসপ্লে ডিজাইনে এসেছে। এই ডিসপ্লের পিক্সেল রেজোলিউশন ৭২০x১৬০০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। Vivo Y12s ফোনটিতে মিডিয়াটেক হেলিও পি৩৫ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটি ৪ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ১২৮ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ বিকল্পে পাওয়া যাবে। এছাড়া মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করে স্টোরেজ বাড়ানোর সুযোগ আছে।

ফটোগ্রাফির জন্য Vivo Y12s ফোনের পিছনে আছে ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ, যার ডিজাইন আয়তকার। এর প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৩ মেগাপিক্সেলের (অ্যাপারচার এফ/২.২)। এর সাথে থাকছে ২ মেগাপিক্সেলের সেকেন্ডারি ক্যামেরা (অ্যাপারচার এফ/২.৪)। এছাড়া ভিভো ওয়াই১২এস ফোনে ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

Vivo Y12s ফোনটি ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারির সাথে এসেছে। চার্জিংয়ের জন্য এতে আছে মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট। এই স্মার্টফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১০ নির্ভর Funtouch11 ইন্টারফেসে চলে। সিকিউরিটির জন্য এই ফোনে আছে ফেস আনলক ও সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার।

কানেক্টিভিটির কথা বললে Vivo এর এই ফোনটিতে রয়েছে 4G VoLTE, ২.৪ গিগাহার্টজ ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ৫.০, জিপিএস, মাইক্রো ইউএসবি ২.০ এবং ৩.৫ এমএমের অডিও জ্যাক।