পর্দার ‘ডায়ানা’

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ২ আশ্বিন ১৪২৬

পর্দার ‘ডায়ানা’

রোকেয়া ডেস্ক ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০৩, ২০১৯

print
পর্দার ‘ডায়ানা’

তুমুল আলোচিত চরিত্র প্রিন্সেস ডায়ানা যদি আবার কোনো ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্র হন, সে ছবি নিশ্চয়ই দেখার জন্য মুখিয়ে থাকবে কোটি কোটি চোখ। তাই হয়েছিল ‘ডায়ানা’ নামের ছবিটির ক্ষেত্রেও। নাওমি ওয়াটস অভিনীত এই ছবি ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছিল।

কেউ বলছেন, ‘অসামান্য প্রেমকাহিনি’; আবার কারও বয়ানে, ‘বীভৎস’। কেউ প্রশ্ন তুলছেন ছবির গল্পের সত্যতা নিয়ে। কারও যুক্তি, টুকরো টুকরো কাল্পনিক ঘটনা দিয়ে যেভাবে পর্দায় ডায়ানার জীবনের শেষ কটি বছরকে পুনর্নির্মাণ করেছেন পরিচালক অলিভার হার্শবিগেল, তা এক কথায় অনবদ্য। তাতে তথ্যের বিশুদ্ধতা খুঁজতে যাওয়া অনর্থক। সব মিলিয়ে সেখানে ব্রিটেনের যুবরানীর চরিত্রের মূল নির্যাসই ছবির প্রাণ।

ছবিটি মূলত ডায়ানা এবং তার পাকিস্তানি চিকিৎসক হাসনাতের বহুচর্চিত প্রেমকাহিনি অবলম্বনে তৈরি। কিন্তু সম্প্রতি হাসনাত দাবি করেছেন, সেই প্রেমের ‘পুরোটাই রটনা।’ নাম ভূমিকায় অভিনয় করা নাওমি পর্যন্ত ভেবেছিলেন ছবি মুক্তি পাওয়ার পর হয়তো তাকে দেশ ছেড়ে পালাতে হতে পারে। তবে প্রতিক্রিয়া বলছে, প্রত্যাশিতভাবেই ডায়ানার লড়াইটা সহজ হবে না। যদিও সমালোচকদের অনেকেই নাওমির অভিনয়ে মুগ্ধ হন। ছবির চিত্রনাট্যকার স্টিফেন জেফ্রি জানান, নিজেকে ‘ডায়ানা’ করে তুলতে বিশেষ ধরনের কৃত্রিম নাক লাগানো ছাড়াও রীতিমতো ‘ভয়েস কোচিং’ নিয়েছেন নাওমি।

তবে হাসনাত-ডায়ানার প্রেমের সত্যতা প্রসঙ্গে জেফ্রি নিজেই জানান, আমি এ বিষয়ে অন্তত ২০টি বই পড়েছি। কোনোটাই একে অপরের সঙ্গে মেলে না। ফলে ‘আসল সত্যি’টা দেখানো অসম্ভব। পরিচালকও জানান, ছড়িয়ে থাকা তথ্য জোগাড় করে ছবিটি বানিয়েছেন তিনি।