নবজাতকের সঙ্গে পরীক্ষার হলে

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

নবজাতকের সঙ্গে পরীক্ষার হলে

রোকেয়া ডেস্ক ৩:০২ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯

print
নবজাতকের সঙ্গে পরীক্ষার হলে

২০১৪ সালের ৫ মার্চ। বেলা দেড়টা। খাগড়াছড়ির দীঘিনালা ডিগ্রি কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্রের পাশে অফিস সহকারীদের কক্ষে এক নবজাতক নিয়ে বসে আছেন এক নারী। নবজাতকটির মা পরীক্ষা দিচ্ছেন। আর উনি (ওই নারী) নবজাতকের আত্মীয়। শিশুটির বয়স এক দিন। পরীক্ষার্থীর নাম ফাতেমা আক্তার।

৪ মার্চ দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে ফাতেমার কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে এক ছেলে। একদিকে প্রথম সন্তান, প্রথম মাতৃত্বের অনুভূতি। অন্যদিকে পরীক্ষা না দিলে পুরো এক বছর পিছিয়ে যাওয়ার চিন্তা। কী করবেন বুঝতে পারছিলেন না ফাতেমা। শেষমেশ ঝুঁকি নিয়েই সন্তানসহ চলে আসেন পরীক্ষা কেন্দ্রে। সন্তান ছিল ফাতেমার ভাবীর কোলে। সেদিন বিকম কোর্সের হিসাববিজ্ঞান প্রথম পত্রের পরীক্ষা ছিল ফাতেমার।

এভাবে এক দিন বয়সী শিশুকে নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ায় পরীক্ষা কেন্দ্রের কর্মকর্তা ও কলেজের অধ্যক্ষ আশ্চর্য হয়ে যান। ফাতেমা দীঘিনালার কবাখালী ইউনিয়ন পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক ও মুসলিমপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবদুর রহমানের স্ত্রী। তিনি দীঘিনালা ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী। উপজেলায় একটিই কলেজ থাকায় ওই কলেজেই তারা সবাই পরীক্ষা দেন। সাহসী এই মা তার আত্মত্যাগ ও পরিশ্রমের প্রতিদানও পেয়েছেন। ১১ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত স্নাতক পরীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী, বাণিজ্য বিভাগ থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পাস করেছেন তিনি।