ফজর নামাজে অলসতা দূরের উপায় কী?

ঢাকা, রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৪ আশ্বিন ১৪২৭

ফজর নামাজে অলসতা দূরের উপায় কী?

শহিদুল ইসলাম, বাঁশবাড়িয়া, সীতাকুণ্ড, চট্টগ্রাম ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ০৯, ২০২০

print
ফজর নামাজে অলসতা দূরের উপায় কী?

যদি ফজরে উঠতে দৃঢ় ইচ্ছা করেন, কখনোই রাত জাগবেন না। তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ুন যাতে করে একদিকে আপনার ঘুমও পূর্ণ হয়, অন্যদিকে যথাসময়ে ফজরের জন্য উঠতে পারেন। রাসুল (সা.) এশার নামাজের পরপরই ঘুমাতে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে অজু করে নিন। যদি পবিত্র অবস্থায় ঘুমাতে যান, ফেরেশতারা ঘুম থেকে জাগার আগ পর্যন্ত আপনার জন্য দোয়া করতে থাকবে।

ডান কাত হয়ে ঘুমান। রাসুল (সা.) ঘুমানোর সময় ডান কাত হয়ে ডান হাতকে ডান গালের নিচে রেখে ঘুমাতেন। রাসুল (সা.)-এর অনুকরণে ঘুমের জন্য শোয়ার এই অবস্থা একদিকে যেমন ঘুমের জন্য সহায়ক, অন্যদিকে ফজরে যথাসময়ে ঘুম থেকে ওঠার জন্যও কার্যকর।

আল্লাহর কাছে আন্তরিকতার সঙ্গে বেশি বেশি দোয়া করুন, যাতে আল্লাহ আপনাকে যথাসময়ে ফজরের নামাজ আদায়ে সামর্থ্য ও শক্তি দান করেন। ঘুমাতে যাওয়ার সময় কোরআন থেকে কিছু আয়াত তিলাওয়াত করে নিন। বিশেষ করে সুরা সাজদাহ, সুরা মুলক, সূরা ইসরা, সূরা যুমার, সূরা কাহাফের শেষ চার আয়াত, সুরা বাকারার শেষ দুই আয়াত ইত্যাদি এক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে।

একাধিক অ্যালার্ম ঘড়ি ব্যবহার করুন। আওয়াজ যত বেশি হবে, ততই ভালো! অ্যালার্ম ঘড়ি হাতের কাছে বা বিছানার পাশে না রেখে দূরে রাখুন, যাতে করে আপনাকে বিছানা থেকে উঠে গিয়ে ঘড়ি বন্ধ করতে হয়।

পরিবারের সদস্যদের বলুন, যদি তারা উঠতে পারে তবে যেন ডেকে দেয়। তেমনিভাবে আপনি উঠতে পারলেও তাদের ফজর নামাজের জন্য ডেকে দিন।
বন্ধুদের কাছে সাহায্য চাইতে পারেন। যদি তারা উঠতে পারে, তবে তারা যেন ফোন কলের মাধ্যমে আপনাকে ফজরের জন্য ডেকে দেয়। তেমনি আপনিও আপনার বন্ধুদের ফজরের নামাজ আদায়ে সাহায্য করুন।

নিজেকে পুরস্কার দিন। যদি আপনি ফজরে উঠতে পারেন, তবে আপনার প্রিয় ফ্লেভারের কফি বা চকলেট দিয়ে নিজেকে পুরস্কৃত করুন।