ঋতুবতী স্ত্রীর সঙ্গে মিলিত হলে করণীয় কী?

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ঋতুবতী স্ত্রীর সঙ্গে মিলিত হলে করণীয় কী?

খোলা কাগজ ডেস্ক ৮:৫০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

print
ঋতুবতী স্ত্রীর সঙ্গে মিলিত হলে করণীয় কী?

মুহাম্মাদ হেলাল উদ্দীন, দোহার, ঢাকা

প্রশ্ন : ঋতুবতী স্ত্রীর সঙ্গে সহবাস করে ফেললে করণীয় কী? আমার এমনটা ঘটে গেছে। এখন কী করতে পারি?

উত্তর : ঋতুবতী স্ত্রীর সঙ্গে সহবাস হারাম। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ এ থেকে বারণ করেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘আর তোমার কাছে জিজ্ঞাসা করে হায়েজ (ঋতু) সম্পর্কে। বলে দাও, এটা অশুচি। কাজেই তোমরা হায়েজ অবস্থায় স্ত্রী গমন থেকে বিরত থাক। তখন পর্যন্ত তাদের নিকটবর্তী হবে না, যতক্ষণ না তারা পবিত্র হয়ে যায়। যখন উত্তম রূপে পরিশুদ্ধ হয়ে যাবে, তখন গমন কর তাদের কাছে, যেভাবে আল্লাহ তোমাদের হুকুম দিয়েছেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ তওবাকারী এবং অপবিত্রতা থেকে যারা বেঁচে থাকে তাদের পছন্দ করেন’ (সূরা বাকারাহ-২২২)।

এ অবস্থায় সঙ্গম করাকে বৈধ মনে করা কুফুরি। তাই প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে যদি হালাল মনে করে সঙ্গম না করা হয় তাহলে তাওবা ইস্তেগফার করবে (আবু দাউদ-৩৯০৪)।

আর সঙ্গম যদি স্রাবের সূচনালগ্নে হয়, তাহলে তার জন্য মুস্তাহাব হলো তওবা করার পাশাপাশি এক দিনার তথা (৪.৩৭২৫ সোনা-বর্তমান যার বাজার মূল্য ১১,০১৫.৫৫ টাকা) সদকা করে দেওয়া। আর যদি স্রাবের শেষের দিকে হয়, তাহলে অর্ধ দিনার (তথা ২.১৮৬২৫ গ্রাম সোনা- বর্তমানে যার বাজার মূল্য ৫,২০৭.৭৭৫ টাকা) সদকা করে দেওয়া (মুসান্নাফে ইবনে আব্দুর রাজ্জাক, হাদিস-১২৬৪)।

স্ত্রীর ঋতুবতী অবস্থায় তার সঙ্গে সহবাস ব্যতীত একত্রে থাকা, খাওয়া, ঘুমানো, চুম্বন ইত্যাদিতে কোনো প্রকার নিষিদ্ধতা নেই। তবে সতর্কতা কাম্য।