গাইবান্ধায় বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ

ঢাকা, সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২ | ১১ মাঘ ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

গাইবান্ধায় বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
🕐 ৪:২৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২১

গাইবান্ধায় বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ

পুঁজিবাদ-সাম্প্রদায়িকতা-স্বৈরাচারী দুঃশাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো, মহান রুশ বিপ্লব ও পার্টির ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী এবং গাইবান্ধা বাসদ মার্কসবাদী জেলা নেতা গোলাম ছাদেক লেবু, নেতাকর্মীসহ সাধারণ নিরীহ মানুষের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করার দাবিতে গাইবান্ধায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে বাসদ (মার্কসবাদী) গাইবান্ধা জেলা উদ্যোগে এসব অনুষ্ঠিত হয়।

প্রথমে জেলা কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পার্টির জেলা কমিটির আহবায়ক কমরেড আহসানুল হাবিব সাঈদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখরেন পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়ক কমরেড ফখরুদ্দিন কবীর আতিক, জেলা কমিটির সদস্য নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, কাজী আবু রাহেন শফিউল্লাহ খোকন, মাহবুবুর রহমান খোকা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, আজকের শাষণ ব্যবস্থায় এই সরকার স্বৈরাচারী ও ফ্যাসিবাদী কায়দায় দেশ পরিচালনা করছে যেখানে মানুষ চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। মানুষের বেঁচে থাকার ন্যুনতম অধিকার টুকু নেই। এই পুঁজিবাদী শাসন ব্যবস্থায় পুলিশ, প্রশাসন শ্রমজীবি জনগনের টাকায় বেতন নিয়ে মালিকের মুনাফা পাহারা দেয়। আর এই নিরাপত্তার মধ্যে থেকে পুঁজিবাদীরা তাদের লুটপাট সীমাহীন অবস্থায় নিয়ে গেছে।

এ এমনই অমানবিক ব্যবস্থা যেখানে মহামারীকালে দেশে আড়াই কোটি মানুষকে বেকার করেছে বিপরীতে শত শত নতুন কোটিপতির সৃষ্টি করেছে জীবনদায়ী ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জামের দুর্নীতি করে। মূল্যবৃদ্ধি তো নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। এই অবস্থার মধ্যে পড়ে মানুষ সীমাহীন কষ্ট ভোগ করছে। অথচ আজ থেকে ১০৪ বছর আগে শ্রমিক শ্রেণীর যে রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো সোভিয়েত ইউনিয়নে সেই সমাজতান্ত্রিক দেশ মানুষকে সকল ধরণের নিরাপত্তা দিয়েছিলো।

সেখানে ছিলো না কোন ভিক্ষুক, বেকার, পতিতা। সবার জন্য শিক্ষা ও চিকিৎসা ছিলো বিনামূল্যে। নারীরা পেয়েছিলো প্রকৃত মর্যাদা ও স্বাধীনতা। বক্তারা বলেন, সাম্প্রদায়িক ও জাতিগত সমস্যাকে বিজ্ঞান সম্মতভাবে মোকাবিলা করেছিলো সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থা। ফলে আজকের দিনের সকল সংকট থেকে মুক্তি পেতে এই শোষণমূলক, অমানবিক ব্যবস্থাকে ভেঙ্গে সমাজতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণের সংগ্রামে শ্রমজীবি মানুষকে সর্বশক্তি নিয়োগ করতে হবে। সেই সাথে গাইবান্ধা সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সরকার দলীয় প্রার্থী তিনটি কেন্দ্রে জোরপূর্বক ভোট নিয়ে কাউন্সিল বাজার কেন্দ্রে গেলে জনগনের প্রতিরোধের মুখে পড়ে।

নিজের অপকর্ম ঢাকতে ষড়যন্ত্রমুলকভাবে ও হয়রানির উদ্দেশ্যে বাসদ মার্কসবাদী জেলা নেতা ও চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম সাদেক লেবুসহ নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষের নামে রাষ্ট্রদ্রোহ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করার দাবি জানান। সমাবেশ শেষে তারা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

 
Electronic Paper