প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১ | ৬ কার্তিক ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা

আনোয়ার হোসেন বুলু, হিলি
🕐 ৮:৩৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১

প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা

আর ক’দিন বাদেই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। তাই প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার মৃৎশিল্পীরা। লকডাউন শিথিল হওয়ার কারণে হঠাৎ করেই কাজের চাপ বেড়েছে প্রতিমা কারিগরদের।

রাত-দিন পরিশ্রম করে আপন মনে, নিপুণ হাতে তৈরি করছেন মা দেবীদুর্গাকে। করোনা পরিস্থিতিতে যেন স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত না হয় সে ব্যাপারে প্রস্তুতি নিয়েছেন সংশ্লিষ্টরাও।

গত ১৫ বছরের বেশি সময় প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন কণক চন্দ্র। ছোটবেলা থেকে কারিগরদের সঙ্গে কাজ করতে করতে আজ তিনি নিজেই প্রতিমা তৈরির কারিগর হয়েছে। তিনি এবার সাতটি মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কাজ হাতে নিয়েছেন।

ইতোমধ্যে চারটিতে মাটি লাগানোর কাজ শেষ করেছে। পূজা শুরুর ১৩-১৪ দিন আগে রঙ এর কাজ শুরু করবেন। তখন রঙতুলির আচড়ে প্রতিমাকে জীবন্তরূপে ফুটিয়ে তোলা হবে বলে জানান তিনি। কণক একটি প্রতিমা তৈরি করতে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা নিচ্ছেন। বাজারে সব জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি তার ওপর লকডাউন। তারপরও সব কিছু কাটিয়ে সেরা কাজ উপহার দিতে পারবেন বলে আশা করেন কনক।

প্রতিমা কারিগর সুজন কুমার পাল এবার হাতে নিয়েছেন পাঁচটি কাজ। খুবই ব্যস্ত সময় পার করছে তার দলের লোকজন। দলে লোকসংখ্যা বাড়ালেও কাজের ব্যস্ততা শেষ হচ্ছে না তার। প্রতিমা তৈরিতে ৪০ থেকে ৪৫ হাজার টাকা নিচ্ছেন সুজন। বাজারে সব জিনিসের দাম ঊর্ধ্বগতি হলেও বরাবরের মতো এবারেও সেরা কাজ দিতে পারবেন বলে আশা করেন তিনি।

সরেজমিনে হাকিমপুর উপজেলার চন্ডিপুর মন্দির, পালপাড়া মন্দির, গোহাড়া মন্দির, সাদুড়িয়া গ্রামের রাজ নারায়নশাহ সার্বজনীন দুর্গা মন্দির, দক্ষিণ সাহাজাদপুর সার্বজনীন দুর্গা মন্দির, জাংগই সার্বজনীন দুর্গা মন্দির ঘুরে দেখা যায়, শিল্পীর নিপুণ হাতে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ।

নিখুঁতভাবে মনের মাধুরী মিশিয়ে কারিগররা ফুটিয়ে তুলছেন দুর্গা দেবীকে। পাশাপাশি চলছে লক্ষ্মী, সরস্বতী, গণেশ ও কার্তিক, অসুর, সিংহ, মহাদেবসহ ১২টি প্রতিমা তৈরির কাজ। কোনো ম-পে চলছে কাঠামো তৈরি আবার কোথাও করা হচ্ছে মাটির কাজ।

হাকিমপুর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দীপংকর শাহা (রিপন) বলেন, এবার হাকিমপুর উপজেলায় ২১টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। মন্দিরে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গোৎসব পালনের জন্য সব প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

হাকিমপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, দুর্গাপূজায় সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রস্তুতি রয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনের জন্য পুলিশ সব ধরনের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

 

 
Electronic Paper