সুন্দরগঞ্জে সড়কের গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে!

ঢাকা, রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

সুন্দরগঞ্জে সড়কের গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে!

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
🕐 ৩:৫২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১

সুন্দরগঞ্জে সড়কের গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে!

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে অনুষ্ঠানের নাম করে সরকারি সড়ক থেকে অর্ধশতাধিক গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে একটি হাফেজিয়া মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের রহমানিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন পাইটকা পাড়া গ্রামের আজিজ মোড় হয়ে মির্জাপুর খেয়াঘাট (পুরাতন) সড়ক থেকে প্রায় অর্ধশতাধিক গাছ কেটে নিয়েছে মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে গাছগুলো শ্রমিক দিয়ে কর্তন করে সেগুলো বিক্রি করেন। ট্রাক যোগে গাছগুলো নিয়ে যান গাছ ব্যবসায়ী। ইউক্যালিপ্টাস, কাঁঠাল ও কড়াইসহ বিভিন্ন প্রজাতির অর্ধশতাধিক গাছ কাটা হয়। গাছগুলোর আনুমানিক দাম হবে আড়াই লক্ষ টাকা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সড়কটি পাঁকা হতে যাচ্ছে। এমন সংবাদ পেয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ কয়েকদিন ধরে সড়কের দুপাশে থাকা গাছগুলো কাটেন। গাছগুলো এলাকায় সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করে আসছিলো। কিন্ত তারা মাদ্রাসার অনুষ্ঠানের কথা বলে গাছগুলো কেটে নেন। গাছের গোলাইগুলো ট্রাক যোগে নিয়ে যান ব্যাপারী। ডালপালাগুলো তাদের হাফেজিয়া মাদ্রাসার ভিতরে রাখা হয়েছে।

গাছগুলো কেটে নেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে হাফেজিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মকবুল হোসেন বলেন, ‘হাফেজিয়া মাদ্রাসায় একটা অনুষ্ঠান আছে। অনেক টাকা খরচ হবে সে অনুষ্ঠানে। এ কারণে গাছগুলো কেটে বিক্রি করা হয়েছে। তবে কাউকে না বলে গাছগুলো কাটা বড় অন্যায় হয়েছে।’

মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠাতার বড় ছেলে মাহাবুর আলম বলেন, ‘রংপুরের এক ব্যাপারীর কাছে গাছগুলো বিক্রি করা হয়েছে। তাদের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নম্বার কিছুই আমার জানা নেই।’

এ বিষয়ে মাদ্রাসার শিক্ষক রাসেল হাসান বলেন, ‘গাছগুলো তের হাজার টাকা বিক্রি করা হয়েছে। ডাল পালাগুলো মাদ্রাসার ভিতর রাখা আছে।’
ছবি তোলার অনুমতি চাইলে তিনি বলেন, ‘মাদ্রাসার ভিতরে ঢোকা নিষেধ আছে। ওখানে মেয়ে শিক্ষার্থীরা থাকেন।’

সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. মাহমুদ আল হাসান বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখছি। সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 
Electronic Paper