ঈদুল আজহায় ৬ দিন বন্ধ বুড়িমারী স্থলবন্দর

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

ঈদুল আজহায় ৬ দিন বন্ধ বুড়িমারী স্থলবন্দর

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি
🕐 ৪:৪৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২১

ঈদুল আজহায় ৬ দিন বন্ধ বুড়িমারী স্থলবন্দর

লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দর ঈদুল আজহায় ছয় দিন বন্ধ থাকছে। এ ব্যাপারে স্থলবন্দর আমদানি- রপ্তানিকারক সমিতি একটি চিঠি ইস্যু করেছে। বন্ধ রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি- রপ্তানিকারক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ নেওয়াজ নিশাত।

 

বন্ধের সময় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এ স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারতের কলকাতায় নিযুক্ত উপ-হাইকমিশনের ইস্যুকৃত অনাপত্তিপত্র, স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে আসা পাসপোর্টধারী যাত্রীদের চলাচল অব্যাহত থাকবে বলে আন্তজার্তিক অভিবাসন চৌকি (ইমিগ্রেশন) জানিয়েছে।

জানা গেছে, বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতি ও সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন যৌথ আলোচনা সভা করে ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামীকাল সোমবার (১৯ জুলাই) থেকে শনিবার (২৪ জুলাই) পর্যন্ত ছয় দিন আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি স্থলবন্দরের কাস্টমস, বন্দর কর্তৃপক্ষ, পুলিশ ইমিগ্রেশন, ভারত ও ভুটানের আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতি, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, বিজিবি, ইউএনও, উদ্ভিদ সংগনিরোধ, সোনালী ব্যাংক, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাজেন্ট কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশন, শ্রমিক ফেডারেশনকে প্রদান করা হয়েছে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি ও পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুল বলেন, পবিত্র ঈদুল আজহায় বুড়িমারী স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতি ও সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন সিদ্ধান্ত মোতাবেক এ স্থলবন্দর ৬ দিন বন্ধ থাকবে। ২৫ জুলাই থেকে আমদানি-রপ্তানি ও সিঅ্যান্ডএফ বিষয়ক কার্যক্রম পূর্বের ন্যায় চালু করা হবে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন বলেন, বুড়িমারী স্থলবন্দর বন্ধ থাকলেও সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক অভিবাসন চৌকি (ইমিগ্রেশন) দিয়ে উপ- হাইকমিশনের এনওসি ও করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক থাকবে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর কাস্টমস্ সহকারী কমিশনার (এসি) কেফায়েত উল্যাহ মজুমদার বলেন, আমদানি-রপ্তানিতে নিয়োজিত ব্যবসায়ী, ব্যাংক, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাজেন্ট কর্মচারী ও শ্রমিকরা কাজ বন্ধ রাখলে কাস্টমস ও স্থলবন্দরের কাজ থাকে না। তবে, কাস্টমস কার্যালয় খোলা থাকবে।

 

 
Electronic Paper