নাগেশ্বরীতে বিজয়স্তম্ভের অবমাননার অভিযোগ!

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

নাগেশ্বরীতে বিজয়স্তম্ভের অবমাননার অভিযোগ!

নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
🕐 ৯:২১ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০২১

নাগেশ্বরীতে বিজয়স্তম্ভের অবমাননার অভিযোগ!

নাগেশ্বরী কচাকাটা থানার কেন্দ্রীয় স্বাধীনতার বিজয়স্তম্ভকে অবমাননার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কচাকাটা থানার কেন্দ্রীয় স্বাধীনতার বিজয় স্তম্ভটির সামনের বেদীকে ট্রাকে গরু উঠানো নামানোর কাজে ব্যবহার করছে গরু ব্যবসায়ীরা। এতে বেদীর উপর গরু মানুষের উঠা নামা এবং গরুর গোবর দিয়ে বেদীসহ পুরো এলাকা অপরিছন্ন হয়ে গেছে। বেদীটি ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ারও সম্ভাবনাও রয়েছে।

এলাকার সচেতন মহলের অভিযোগ শত শত মানুষের সামনে প্রকাশ্যে ট্রাক লাগিয়ে, পায়ে মাড়িয়ে গরু তোলার কাজে বিজয়স্তম্ভের বেদী ব্যবহার এটা স্বাধীনতার বিজয়স্তম্ভের অবমাননা।

জানা যায়, কোরবানীকে সামনে রেখে কচাকাটা বাজার পশুর হাট কচাকাটা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানান্তর করা হয়। প্রতিদিন এই হাটে শতাধিক গরু বেচা কেনা হয়। দূর দূরান্তের ব্যবসায়ীরা ট্রাক যোগে গরু নিয়ে যায়। এসব ট্রাকে গরু তুলতে বিজয়স্তম্ভের উচু বেদীকে ব্যবহার করে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

স্থানীয় দোকানদাররা জানান, প্রতিদিন বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত এখানে ট্রাকে গরু তোলা হয়। গেল বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকায় গরু নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশে ট্রাকে গরু উঠান বল্লভের খাষ ইউনিয়নের গরু ব্যবসায়ী মোখলেসুর রহমান এবং কচাকাটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্পাদক আতাউর রহমান। এ সময় কচাকাটা জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির সদস্যরা বাঁধা দিলে কয়েকটি গরু তুলে ট্রাকটি সরিয়ে নেন তারা।

ব্যবসায়ী মোখলেছুর রহমান জানান, তার ১২টি এবং আতাউর রহমানের তিনটি গরু ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য ট্রাকটি ভারা করা হয়েছে। ইটের গাথা এই স্থানটি উচু গরু তুলতে সুবিধা তাই ট্রাক এখানে লাগানো হয়েছে। এই স্থানের অর্থ আমরা বুঝতে পারি নাই।

এ বিষয়ে আতাউর রহমান জানান, তিনি তিনটি গরু ঢাকায় তার আত্মীয়ের বাসায় পাঠাবেন বলে এই ট্রাকে দিতে এসেছেন। তিনি আসার আগেই ট্রাকটি বেদীতে লাগিয়ে গরু তোলার কাজ শুরু হয়েছে। আসলে এখানকার কেউ এই স্তম্ভের মর্ম বুঝতে পারেননি।

কচাকাটা জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির কোষাধ্যক্ষ মমিনুল ইসলাম জানান, বিজয়স্তম্ভের বেদী ব্যবহার করে ট্রাকে গরু উঠানো বিষয়টি হৃদয় বিদারক। সেখানে উচ্চ শিক্ষিত ব্যক্তিরাও ছিলো। কেউ নিষেধ করার ছিলো না। পরে সংবাদ পেয়ে আমরা কয়েকজন সেখানে গিয়ে তাদেরকে সতর্ক করে দেই এবং ট্রাকটি সরিয়ে দেই। পরে ব্যবসায়ীদের বেদীসহ পুরো চত্তর পরিস্কার করে দিতে বলি।

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুব আলম জানান, বিষয়টি শোনার পর হাট কমিটির সভাপতিকে অবহিত করা হয়েছে। পরবর্তিতে এরকম ঘটনা যাতে না ঘটে সে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

 

 
Electronic Paper