প্লাস্টিক বস্থায় চাল রাখায় জরিমানা, প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের হরতাল

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭

প্লাস্টিক বস্থায় চাল রাখায় জরিমানা, প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের হরতাল

রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ৬:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

print
প্লাস্টিক বস্থায় চাল রাখায় জরিমানা, প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের হরতাল

কুড়িগ্রামের রাজারহাট সদর বাজারে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল শুক্রবার ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে সকাল সন্ধ্যা হরতাল পালন করেছে।

জানা যায়, পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার বিষয়ে কুড়িগ্রাম পাট উন্নয়ন সহকারী মুখ্য পরিদর্শকের কার্যালয়ের সহকারী কর্মকর্তা মোছা. রওশন আরা বেগমের উদ্যোগে রাজারহাট সদর বাজারে গত মঙ্গলবার বিকালে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নূরে তাসনিমের নেতৃত্বে চাল বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

এ সময় ৩ জন ব্যবসায়ীর দোকানে প্লাস্টিকের বস্তায় চাল রাখার অপরাধে প্রতিজনের এক হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় কিছু ব্যবসায়ী একত্রিত হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় বাধা প্রদান করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। পরদিন ২০ জানুয়ারি কুড়িগ্রাম পাট উন্নয়ন সহকারী কর্মকর্তা মোছা. রওশন আরা বেগম বাদী হয়ে সরকারি কাজে বাধা প্রদানের অভিযোগে চাল ব্যবসায়ী কমল চন্দ্র মহন্ত (৪০), পুতুল রায় (৪৫) ও আবুল কালাম (৫০) সহ অজ্ঞাত নামীয়র বিরুদ্ধে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নূরে তাসনিম বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় চালের দোকানে দেশীয় চালের প্লাস্টিকের বস্তা রাখার অপরাধে তিন জনের জরিমানা আদায় করে সতর্ক করে দেওয়া হয়। তাৎক্ষণিক অন্য ব্যবসায়ীরা আদালতকে পরিচালনায় বাধা প্রদান করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। আমি বিজ্ঞ আদালতের কাছে বিচার প্রার্থনা করেছি।

এদিকে, রাজারহাট উপজেলা সদর বণিক সমিতির সভাপতি আলহাজ আমজাদ হোসেন বলেন, কিছু উৎসুক মানুষ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। তাই রাজারহাট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও অপরাধী ব্যবসায়ীসহ ২০ জন ব্যবসায়ী ইউএনওর কার্যালয়ে গিয়ে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করা হয়েছে। এরপরও তিনি ওই দিন রাতেই মামলা দায়ের করেন।