জোর করে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যাওয়ায় পথে স্ত্রীর সামনে স্বামীর আত্মহত্যা

ঢাকা, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৪ আশ্বিন ১৪২৭

জোর করে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যাওয়ায় পথে স্ত্রীর সামনে স্বামীর আত্মহত্যা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ১২:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৩, ২০২০

print
জোর করে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যাওয়ায় পথে স্ত্রীর সামনে স্বামীর আত্মহত্যা

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে স্ত্রীর সা‌থে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে ধরলা নদীতে লাফ দিয়ে জোবায়ের আলম জয় (২৩) না‌মে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন। রোববার দুপুরে উপজেলার শেখ হাসিনা ধরলা সেতু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে ঈদ উপলক্ষে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে স্ত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সেতু থেকে নদীতে লাফ দেন স্বামী জোবায়ের আলম জয়। এতে পানির স্রোতে ভেসে যান তিনি। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলবাড়ী থানার অ‌ফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজীব কুমার রায়।

 

জোবায়ের আলম নামে ওই যুবক ফুলবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও চন্দ্রখানা কলেজপাড়ার আমীর হোসেনের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, জোবায়ের আলম লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার হারাটি এলাকায় বিয়ে করেন। রোববার দুপুরে স্ত্রী, শ্যালক, শ্যালিকাসহ অটোরিকশায় দাওয়াত খেতে শ্বশুরবাড়িতে যাচ্ছিলেন। যাওয়ার পথে শ্বশুরবাড়িতে যাওয়া না যাওয়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। তিনি শ্বশুরবাড়িতে যেতে চাচ্ছিলেন না। স্ত্রীও ছাড়বেন না। এ নিয়ে তর্কের এক পর্যায়ে তারা ধরলা সেতুর মধ্যবর্তী স্থানে পৌঁছালে তিনি আকস্মিক অটোরিকশা থেকে নেমে দৌড় দেন। স্বামীকে থামাতে স্ত্রীও চিৎকার করতে করতে তার পেছনে দৌড়াতে থাকেন। এর মধ্যেই সেতুর রেলিংয়ের ওপর উঠে নদীতে লাফিয়ে পড়েন জোবায়ের।

এ সময় তার স্ত্রী আর্তনাদ করতে থাকেন। দেখতে দেখতে চোখের সামনে ধরলার গভীর পানিতে তলিয়ে স্রোতে ভেসে যান স্বামী। এক সময় স্ত্রী জ্ঞান হারিয়ে সেতুতে পড়ে যান।

পরে পরিবারের লোকজন এসে তাকে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ও নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার অভিযান চালিয়ে বিকাল ৩টার দিকে ধরলা নদী থে‌কে জ‌য়ের মর‌দেহ উদ্ধার করে।

জোবায়েরের শ্যালক শরীফুল ইসলাম জানান, দুলাভাই আমাদের বাড়িতে যেতে চাচ্ছিলেন না। এ নিয়ে বোন-দুলাভাইয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি চলছিল। তিনি (দুলাভাই) যে নদীতে লাফ দেবেন তা বুঝতে পারিনি।

ওসি রাজীব কুমার রায় জানান, “মাদকাস‌ক্তের কার‌ণে ওই যুবক কিছুটা মান‌সিক ভারসাম‌্যহীন ছিল। ঘটনার পরপরই পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের যৌথ প্রচেষ্টায় খুব অল্প সময়ের মধ্যে ওই যুব‌কের মর‌দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।”