নীলফামারীতে সেনা তত্ত্বাবধানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

নীলফামারীতে সেনা তত্ত্বাবধানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট

মোশাররফ হোসেন, নীলফামারী  ৯:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৭, ২০২০

print
নীলফামারীতে সেনা তত্ত্বাবধানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট

করোনা মহামারি থেকে বাঁচার অন্যতম একটা উপায় হচ্ছে ভিড় এড়িয়ে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা। সামাজিক দূরত্ব না মানার কারণেই আমাদের দেশে করোনা বেশি ছড়িয়েছে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা। আর আমাদের মানুষগুলোও এ বিষয়ে অভ্যস্ত নয় বিধায় নীলফামারীতে কোরবানির পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে কাজ করছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা।

গতকাল মঙ্গলবার ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের আর্টিলারি ব্রিগেডের ১৯ মিডিয়াম রেজিমেন্ট আর্টিলারির সেনাদের তত্ত্বাবধানে বসেছে জেলা সদরের ঢেলাপীর পশুর হাট।  গতকাল সকাল থেকে ওই হাটে এই কার্যক্রম শুরু করেন সেনাবাহিনীর দিনাজপুরের পার্বতীপুর খোলাহাটি ক্যাম্পের ১৯ মিডিয়াম রেজিমেন্ট আর্টিলারির সদস্যরা। হাটে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে তারা স্থাপন করেন হাটে প্রবেশ ও বহির্গমনের ওয়ানওয়ে ব্যবস্থা। প্রবেশপথে গরুর ক্রেতা-বিক্রেতাকে করা হয় জীবাণুমুক্ত। নিশ্চিত করা হয় মাস্ক ব্যবহার। হাত ধোওয়া নিশ্চিত করে পরিমাপ করা হয় শরীরের তাপমাত্রা।

সার্বক্ষণিক টহল দিয়ে নিশ্চিত করা হয় সামাজিক দূরত্ব। পুরো হাটকে আনা হয় সিসি ক্যামেরার আওতায়। তাদের এ কাজে সহযোগিতা করেন পুলিশ এই কাজের উদ্বোধন করে তা বাস্তবায়নে নেতৃত্ব দেন ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের আর্টিলারি ব্রিগেডের ১৯ মিডিয়াম রেজিমেন্ট আর্টিলারির কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল আরিফ হোসেন। তাকে সহযোগিতা করেন মেজর এরফান করিম ও লেফটেন্যান্ট তানজিম আহমেদ সাকিল।

সেনাবাহিনীর হাট ব্যবস্থাপনার এমন কার্যক্রমে খুশি ক্রেতা-বিক্রেতা উভয় পক্ষ। সোনারায় ইউনিয়নের বেড়াকুঠি গ্রামের বাসিন্দা গরু বিক্রেতা আবুল হোসেন (৫০) বলেন, করোনা দুর্যোগে হাটে গরু নিয়ে এসে মানুষের ভিড় নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম। সেনাবাহিনীকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার কাজ করতে দেখে ভালো লাগছে। গরুর হাটে সকলে স্বাস্থ্যবিধি মানায় আর কোনো ঝুঁকি থাকল না। একই গ্রামের গরু ক্রেতা সোহাগ হোসেন (৩৫) বলেন, হাটে সেনাবাহিনীর উপস্থিতিতে স্বস্তিতে গরু কিনতে পেরেছি। স্বাস্থ্যবিধির পাশাপাশি শৃঙ্খলার বিষয়টিও নিশ্চিত হয়েছে। এতে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ে খুশি।

এ বিষয়ে ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের আর্টিলারি ব্রিগেডের ১৯ মিডিয়াম রেজিমেন্ট আর্টিলারির কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল আরিফ হোসেন বলেন, আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যসম্মত পশুর হাট স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ধর্মপ্রাণ মানুষ আসন্ন কোরবানির হাটে পশু ক্রয় করতে আসবেন, এটা খুবই স্বাভাবিক। বর্তমানে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে হাটে যেন সাধারণ মানুষের মধ্যে করোনা সংক্রমণ না হয়, এই জন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকলেই পশু ক্রয়-বিক্রয় করবেন সেটাও গুরুত্বপূর্ণ।