নীলফামারীতে দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০ | ২৩ আষাঢ় ১৪২৭

নীলফামারীতে দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নীলফামারী প্রতিনিধি ৭:০০ অপরাহ্ণ, মে ২৮, ২০২০

print
নীলফামারীতে দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নীলফামারীতে পৃথক ঘটনায় দুই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার (২৮ মে) সকালে জেলা সদরের খোকশাবাড়ি ও জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি হতে পুলিশ এই লাশ দুটি উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, সকাল ১১টার দিকে জেলা সদরের খোকশাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিছনের একটি পানির গর্তে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মিনা দাস (২৫) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মিনা ওই এলাকার হালিরবাজার গ্রামের তিমু দাসের স্ত্রী। এ ঘটনায় পুলিশ তার স্বামী তিমু দাসকে আটক করেছে। প্রায় এক বছর আগে ভালোবেসে তাদের বিয়ে হয়েছিল।

নীলফামারী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমিনুল ইসলাম জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধূর স্বামীকে আটক করা হয়েছে।

অপরদিকে একই দিন ভোরে জেলার জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের ঘুঘুমারী বেগপাড়া গ্রামে পারিবারিক কলহে স্বামী আহেদ আলী ও শ্বশুর-শাশুড়ি মিলে তিন সন্তানের মা শিমু বেগমকে (৩০) হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী জানায়, নিহত গৃহবধূ শিমু বেগমকে তার স্বামী আয়েদ আলী, শ্বশুর সাইফ উদ্দীন ও সৎ শাশুড়ি আলেয়া বেগম শারীরিকভাবে নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে জোরপূর্বক ইদুর মারা ট্যাবলেট ওই গৃহবধূর মুখে দিয়ে দেয়। ভোরে ওই গৃহবধূ মারা গেলে তারা সকলে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় উপজেলার মিরগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুর রহিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।