দুস্থদের পাশে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন-ব্যক্তি উদ্যোগক্তারা

ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

দুস্থদের পাশে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন-ব্যক্তি উদ্যোগক্তারা

নীলফামারী প্রতিনিধি ২:০৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০

print
দুস্থদের পাশে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন-ব্যক্তি উদ্যোগক্তারা

‘আপনারা ঘরে থাকুন, আপনাদের ঘরে ঘরে আমরা খাদ্য দিয়ে আসবো’। নীলফামারীতে করোনা পরিস্থিতিতে স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী সহায়তা দিতে গিয়ে এভাবেই ঘরবন্দি অস্বচ্ছল মানুষকে আশাস্ত করছেন বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসহ ব্যক্তি উদ্যোগক্তারা।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার সারাদেশ ১০ দিনের লকডাউন ঘোষণা দিয়ে মানুষকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। সরকারের সেই নির্দেশে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না নীলফামারীর মানুষ। ঔষধ, জ¦ালানী, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকানা ছাড়া বন্ধ রয়েছে অন্যসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দোকান। জনশূন্য রয়েছে জেলার রাস্তাঘাট।

এদিকে, গত পাঁচদিন থেকে সব কিছু বন্ধ থাকায় চরম বেকায় দায়ে পড়েছে জেলার অস্বচ্ছল মানুষ। বেকায়দায় পড়া এসব অস্বচ্ছল মানুষের পাশে সরকারের পাশাপাশি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বেশকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, সরকারি কর্মকর্তাসহ কিছু ব্যক্তি। তাদের মধ্যে নীলফামারী জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কাজী সাইফুদ্দিন ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহমুদ হাসানের ব্যক্তিগত উদ্যোগে গত সোমবার জেলা শহরের রিকশাচালক, দিনমজুর ৪০ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে চাল, ডাল, আলু ও তেল। এ ছাড়া ওএমএসএর আওতায় পরিচালিত স্বল্পমূল্যে খোলা বাজারে চাল ও আটা বিক্রয়ের সময় পরিবেশকদের দোকানে আগতদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন তারা।

অপরদিকে, করোনা সংক্রমণ রোধে নীলফামারীতে ঘর বন্দি অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ডিম বিতরণ করেছে নীলসাগর গ্রুপ। গত সোমবার নীলসাগর গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আহসান হাবিব লেলিনের উদ্যোগে জেলার বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় বসবাসরত অস্বচ্ছল পরিবারের বাড়িতে গিয়ে ডিম বিতরণ করেন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নীলসাগর গ্রুপের প্রতিষ্ঠান সুজন পোলট্টি অ্যান্ড ফিস কেয়ারের পরিচালক আওরঙ্গজেব সুজন, নীলসাগর গ্রুপের মার্কেটিং কর্মকর্তা ওয়াহেদ আলী তুফান, সহকারী মানবসম্পদ কর্মকর্তা অমিত চাকি, দৈনিক খোলাকাগজ প্রতিনিধি মোশাররফ হোসেন।

নীলসাগর গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান সুজন পোলট্টি অ্যান্ড ফিস কেয়ারের পরিচালক আওরঙ্গজেব সুজন বলেন, নীলসাগর গ্রুপের চেয়ারমান আহসান হাবিব লেলিনের ব্যক্তিগত উদ্যোগে নীলফামারী সদর, জলঢাকা ও কিশোরগঞ্জ এলাকায় পাঁচ হাজার অস্বচ্ছল পরিবারের প্রত্যেক পরিবারকে ১৫টি করে মোট ৭৫ হাজার ডিম বিতরণ করা হয়।’

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কাজী সাইফুদ্দিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।’

এদিকে গত পাঁচদিন থেকে জেলা শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে গিয়ে রিকশাচালক ও অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের ক্ষুদ্র প্রয়াস নামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

সংগঠনের প্রধান সমন্বয়কারী রাসেল আমিন স্বন বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলার বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক সংগঠন ও বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের সার্বিক সহযোগিতায় দুই হাজার অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। গত চারদিন থেকে এসব বিতরণ করছি। গত সোমবার জেলা শহরের বাটার মোড়ে ৫০ জন রিকশাচালককে খাদ্যসামগ্রী দিয়েছি।

প্রতিদিন শহরের প্রত্যেকটি মোড়ে ৫০জন করে অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে বিতরণ করা হবে। পাশাপাশি আমরা এসব মানুষকে ঘরে থাকতে বলছি এবং তাদের খাদ্য সহায়তা আমরা নিশ্চিত করতে চাইছি।’