ডিজিটালের ছোঁয়া বেদে পরিবারে

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ডিজিটালের ছোঁয়া বেদে পরিবারে

তাজরুল ইসলাম, পীরগাছা (রংপুর) ৭:৪৪ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৯

print
ডিজিটালের ছোঁয়া বেদে পরিবারে

পলিথিনের মোড়ানো ছোট ছোট ঝুপড়ি ঘরে ঝলমল করছে সৌর-বিদ্যুতের আলো। প্রতিটি অস্থায়ী ঘরের উপরে ও পাশে লাগানো হয়েছে সোলার প্লান্ট। যা-যা-ব-র জীবনের অন্ধকারে কেটেছে আলোকিত হয়ে উঠছে এসব বেদে পরিবারের জীবন।

এখন সবার হাতে হাতে মোবাইল ফোন। সেই মোবাইল ফোন এখন সৌর বিদ্যুৎ দিয়েই চার্জ দেওয়া হয়। সেই ফোনে মেমোরি কার্ড লাগিয়ে ছোট ঘরে চলছে বিনোদনের ব্যবস্থা। এই আলোতেই পড়ালেখা করছে বেদে পরিবারের ছেলেমেয়েরা। বর্তমানে এই বেদেরা আলোকিত ঘরে ডিজিটালের ছোঁয়া লেগেছে। পরিবর্তন এসেছে হয়েছে জীবন যাত্রার মান।

রংপুরের পীরগাছা উপজেলার পশ্চিমদেবু এলাকায় দেখা মেলে অস্থায়ীভাবে বসবাসরত ২০টি বেদে পরিবারের। তারা জানান, ‘অনেকে এখন বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে অন্য কাজ করছে। সাপ কেনা-বেচা ও সাপ খেলার ব্যবসা আগের মতো চলে না। ছেলেমেয়েরাও আর এ পেশায় আসতে চায় না। তারা পড়ালেখা করে মানুষের মতো মানুষ হতে চায়। ভবঘুরে জীবন ছেড়ে নিয়মিত স্কুলে যেতে চায়।’

আদম আলী নামে এক বেদে বলেন, ‘খোলা আকাশের নিচে বিভিন্ন গাছের তলে, অস্থায়ী ঝোপ-ঝাড়ে এবং বিভিন্ন পুকুর পাড়ে আমরা দলবেঁধে বসবাস করি। আগে অন্ধকার রাতে কুপির আলো ছিল আমাদের ভরসা। কিন্তু এখন সৌর বিদ্যুতের আলো আছে।

বেদে সরদার নুনু মিয়া বলেন, ‘আমরা বছরের ১০ মাস দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াই আর দু’মাস ঢাকার সাভারে থাকি। যখন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অস্থায়ী বসবাস করি তখন রাতে কেরোসিনের বাতিই ভরসা ছিল। এখন রাতে সৌর বিদ্যুতের বাতি জ্বলে। এখান থেকে মোবাইলে চার্জ দিতে পারি।