সিন্ডিকেটে জিম্মি রেলের যাত্রীরা

ঢাকা, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সিন্ডিকেটে জিম্মি রেলের যাত্রীরা

সুলতান মাহমুদ, দিনাজপুর ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৯

print
সিন্ডিকেটে জিম্মি রেলের যাত্রীরা

রেলের টিকিট কালোবাজারি সিন্ডিকেটের বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে পড়েছে দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশন। সিন্ডিকেটের মধ্যে রয়েছেন রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রেলওয়ে শ্রমিক লীগের শীর্ষ কয়েক নেতা ও রেলওয়ে পুলিশ আর কিছু স্থানীয় বখাটে যুবক। কাউন্টার থেকে চক্রটি অগ্রিম টিকেট সংগ্রহ করে নিয়ে যাত্রীদের জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। শুধু দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট নয়, এখান থেকেই তারা নিয়ন্ত্রণ করছে চিরিরবন্দর, পার্বতীপুর, দিনাজপুর ও পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট। কাউন্টারে টিকিট না মিললেও তিন থেকে চারগুণ দামে মিলছে ঢাকাগামী তিনটি আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট।

দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, দুই চারটি টিকেট বিক্রির পর কাউন্টার থেকে বলা হয় টিকেট শেষ হয়ে গেছে।

তবে স্টেশনে টিকিট না মিললেও কালোবাজে তা পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে শোভন চেয়ার ৪৬৫ টাকার স্থলে ৬০০ থেকে এক হাজার টাকায়, এসি চেয়ার ৮৯২ টাকার স্থলে ১৫০০ থেকে দুই হাজার টাকা দিতে হয়। স্থানীয়রা জানান, এক সময়ে পত্রিকার হকার মিলন রাতারাতি ট্রেনের টিকেট কালোবাজারি করে নাম পরিবর্তন করে এখন মিলন চৌধুরী হয়ে গেছেন। অপর টিকেট কালোবাজারি আলমকে স্টেশন চত্বরে সবাই মন্ত্রী আলম হিসেবে চিনেন। প্লাটফর্মে ফাস্ট ফুডের দোকানি সুজন ও কুলি সর্দার রুস্তমের নিয়ন্ত্রণেই চলে দিনাজপুরে রেলে টিকেট কালোবাজারি। তবে দিনাজপুর রেলের টিকেট কালোবাজারির গডফাদার আলম।

দিনাজপুর রেলওয়ে (জিআরপি) থানার ওসি গুলজার হোসেন বলেন, রেলের টিকেট কালোবাজারি সবচেয়ে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাঝে মাঝে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হলেও চক্রটি খুবই শক্তিশালী। জেলা প্রশাসক ভ্রাম্যমাণ অভিযান পরিচালনা করেন। দুই চারজনকে গ্রেফতার ও সাজা দেওয়া হয়। কিন্তু জেল থেকে বের হয়ে আবার রেলের টিকেট কালোবাজারি শুরু করে তারা।

দিনাজপুর স্টেশন মাস্টার নার্গিস জানান, ঢাকাগামী তিনটি আন্তঃনগর ট্রেনের প্রতিটিতে অতিরিক্ত বগিসহ ১৪টি করে বগি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। প্রতিটি বগিতে আসন রয়েছে ৯২টি করে। কিন্তু দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনে প্রতিটি ট্রেনের মাত্র ১২৫ থেকে ১৫৭টি করে আসনের টিকিট বরাদ্দ করা হচ্ছে। এজন্য দিনাজপুরে যাত্রীদের কাছে ট্রেনের টিকিট বিক্রি করতে তাদের হিমশিম খেতে হয়। টিকিট কালোবাজারি সম্পর্কে তিনি বলেন, কেউ কালোবাজারিতে ট্রেনের টিকিট বিক্রি করলে তাদের আইনের আওতায় আনার দাবি তারও।