রমেক অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

রমেক অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা আত্মসাৎ

রংপুর ব্যুরো ৭:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

print
রমেক অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. মো. নূর ইসলামসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক ডা. মো. ফেরফেদৌস রহমান বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পূর্বানুমোদন ব্যতীত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভারি যন্ত্র ও সরঞ্জামাদি ক্রয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে আসামিদের বিরুদ্ধে।

নিয়ম বহির্ভূতভাবে এসব যন্ত্রাদি ক্রয়ে ৪ কোটি ৪৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩০০ টাকা লোপাটের মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. মো. নূর ইসলাম ছাড়া অন্য আসামিরা হল- রংপুর মেডিকেল কলেজের সহাকারী অধ্যাপক ডা. মো. সারোয়াত হোসেন, বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোম্পানির (৫/ বি তোপখানা রোড) স্বত্বাধিকারী ডা. মো. জাহের উদ্দিন সরকার, আ. সাত্তার সরকার (জাহের উদ্দিনের আত্মীয়), জাহের উদ্দিনের ছেলে আহসান হাবিব এবং ইউনিভার্সেল ট্রেড কর্পোরেশনের (দিনাজপুর) স্বত্বাধিকারী আসাদুর রহমান।

দুদক রংপুর সমন্বিত কার্যালয়ে এ মামলার আবেদন করা হয়। দণ্ডবিধি ৪০৯/৪২০/৪৬৮/ ৪৭১/১০৯ ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় এ মামলা করা হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়, অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অসৎ উদ্দেশ্যে পূর্বপরিকল্পিতভাবে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের যন্ত্রপাতির কোনো ধরনের চাহিদাপত্র না থাকা সত্ত্বেও যন্ত্রপাতি কেনার উদ্যোগ নেন। জাল জালিয়াতি ও প্রতারণার আশ্রয়, অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করে দরপত্র আহ্বান, দরপত্র সংগ্রহ, দরপত্র মূল্যায়ন ও কার্যাদেশ দিয়ে তিনটি মিথ্যা বিলের বিপরীতে মোট ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা তুলে নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন।