ডোমার আ.লীগে দ্বন্দ্ব, সম্পাদকের বহিস্কার চান সভাপতি

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১ আশ্বিন ১৪২৬

ডোমার আ.লীগে দ্বন্দ্ব, সম্পাদকের বহিস্কার চান সভাপতি

আব্দুল্লাহ আল মামুন, ডোমার (নীলফামারী) ৭:৫৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯

print
ডোমার আ.লীগে দ্বন্দ্ব, সম্পাদকের বহিস্কার চান সভাপতি

নীলফামারীর ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ গংদের বহিস্কারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল। রোববার ডোমার নাট্য সমিতি মঞ্চে ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীর ব্যানারে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মঞ্জুরুল হক মঞ্জু চৌধুরীর সঞ্জালনায় লিখিত বক্তব্যে অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গত ২৫ জুলাই বোড়াগাড়ী ইউপি উপ-নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে ভোট করেছে। তিনি সাবেক ফ্রিডম পার্টির নেতা, তার বাবা শওকত আলী ছিলেন ডোমারের রাজাকার প্রধানের অন্যতম সহযোগী। তিনি মার্ডার মামলা থেকে বাঁচতে জাসদ থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করে চলছেন। দলের দুসময়ে তিনি কখনো দলের সঙ্গে ছিলেন না।

তিনি আরও বলেন, তোফায়েল আহমেদ গংরা মাদক ব্যবসা, অটো-মোটরসাইকেল ছিনতাই, অপহরণ, ভুমি দখল, চাকরি দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ এমনকি ছাগল চুরির মত ঘটনাও ঘটিয়েছে। আওয়ামী লীগের পদ-পদবী ব্যবহার করে ডোমারকে সন্ত্রাসী জনপদে পরিণত করেছে। অনেকে ভয়ে কথা বলতে সাহস পায় না।

তিনি দাবি করেন, তোফায়েলের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কেউ নেই। যারা আছে তারা সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও বিএনপি থেকে আসা কিছু লাঠিয়াল ও হাইব্রীড। আগামী ১৪ সেপ্টম্বর ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ভয় পেয়ে সম্মেলনের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি সম্মেলনের বিপক্ষে থাকলেও সব আওয়ামী লীগ সম্মেলনের পক্ষে।

তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আহবান জানিয়েছেন স্বাধীনতা বিরোধী প্রজন্ম ও ফ্রিডম পার্টির নেতা ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল গংদের দল থেকে বহিস্কার করে ডোমারে আওয়ামী লীগের সুষ্ঠু ধারার রাজনীতি ফিরিয়ে আনার।

তবে এ প্রসঙ্গে তোফায়েল আহম্মেদ বলেন, উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা আমার সঙ্গে রয়েছে। তারা গত উপজেলা নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে মোটরসাইকেল মার্কার ভোট করেছে। তাই তিনি বলেন উপজেলা সভাপতিসহ যারা নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছিল তাদের বহিস্কার করতে হবে।