ফুলবাড়ীর পাঁচ ইউনিয়নে স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

ফুলবাড়ীর পাঁচ ইউনিয়নে স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই

আজিজুল হক সরকার, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৪, ২০১৯

print
ফুলবাড়ীর পাঁচ ইউনিয়নে স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের পাঁচটিতেই স্বাস্থ্যকেন্দ্র নেই। এতে প্রত্যন্ত এলাকার বৃহৎ দরিদ্র জনগোষ্ঠী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসাসেবা এবং পরামর্শ না পেয়ে হাতুড়ে চিকিৎসকদের শরণাপন্ন হয়ে অপচিকিৎসার শিকার হচ্ছেন। পাশাপাশি শহরে গিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে স্বাস্থ্যসেবা ও পরামর্শ নিতে তাদের বাড়তি অর্থ গুণতে হচ্ছে।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে দুটিতে ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র থাকলেও অন্য পাঁচটিতে নেই। উপজেলার দুটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রতি মাসে অন্তত পাঁচ হাজার রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়ে থাকে।

শিবনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বিপ্লব বলেন, ইউনিয়নের বেশির ভাগ লোকই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারছেন না। তারা বঞ্চিত হচ্ছেন সরকারের দেওয়া বিনামূল্যের ওষুধ থেকে। কাজীহাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মানিক রতন বলেন, অবকাঠামো না থাকার অজুহাতে চিকিৎসকেরা ইউনিয়ন বা কমিউনিটি ক্লিনিকে আসেন না। কিন্তু অনেক চিকিৎসককে দেখা যায়, ওষুধের দোকানে বসে ঠিকই চিকিৎসাসেবা দেন। প্রতিদিন না হলেও সপ্তাহে তিন-চারদিন যদি ইউনিয়নের মূল কমিউনিটি ক্লিনিকে এসে চিকিৎসাসেবা দিতেন, তবে গ্রামের নিম্ন আয়ের মানুষ উপকৃত হতো।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. নূরুল ইসলাম বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রতিদিন গড়ে সাড়ে তিন থেকে চারশ রোগীকে বহির্বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এতে মাসে গড়ে ১২ থেকে ১৪ হাজার রোগী স্বাস্থ্যসেবা নিচ্ছে এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে। আন্তঃবিভাগেও মাসে গড়ে সাড়ে তিন হাজার থেকে চার হাজার রোগী চিকিৎসাসেবা নিচ্ছে। এর মধ্যে অনেকেই অপচিকিৎসার শিকার হয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসে। উপজেলা পর্যায়ে নতুন আসা চিকিৎসকদের প্রতিটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বিপরীতে নিয়োগ দেওয়া হয়। কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেই চিকিৎসকের পদশূন্য থাকায় ওইসব চিকিৎসককে দিয়ে এখানে রোগী সামলাতে হয়।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন মো. আব্দুল কুদ্দুস বলেন, উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে দুটিতে ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে উঠলেও অন্য পাঁচটিতে গড়ে ওঠেনি এখনও। বিদ্যমান ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে একজন করে চিকিৎসা কর্মকর্তা পদায়ন করা হলেও তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সংযুক্ত থেকে সেখানেই চিকিৎসাসেবা দেন।