রমেকে ডায়ালাইসিস শুরু

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

খোলা কাগজে সংবাদ প্রকাশের পর

রমেকে ডায়ালাইসিস শুরু

সাইফুল ইসলাম, রংপুর ৯:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০১৯

print
রমেকে ডায়ালাইসিস শুরু

রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের কিডনি বিভাগে কিডনি ডায়ালাইসিস শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে কিডনি ডায়ালাইসিস শুরু হয়। এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা। ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট নষ্ট হওয়ায় গত মঙ্গলবার থেকে রমেকে কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিস কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন রোগীরা।

বৃহস্পতিবার খোলা কাগজের প্রথম পাতায় ‘রমেকে ডায়ালাইসিস বন্ধ, নীরব কর্তৃপক্ষ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসে রমেক কর্তৃপক্ষ। অবশেষে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলে ডায়ালাইসিস শুরুর ব্যবস্থা করলে রোগীদের মধ্যে স্বস্তি দেখা গেছে।

রমেকের কিডনি বিভাগীয় প্রধান বলেন, দুটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টের মধ্যে একটি ঠিক করা হয়েছে। দুদিন ডায়ালাইসিস বন্ধ থাকায় স্বাভাবিকভাবে রোগীর চাপ বেড়েছে।

হাসপাতালের প্রশাসনিক বিভাগ কর্মকর্তা খোলা কাগজকে বলেন, ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লেকজিকোন কর্তৃপক্ষ দ্রুত ঢাকা থেকে প্রকৌশলীদের একটি টিম রংপুরে পাঠায়। তারা নিরলসভাবে কাজ করে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে একটি চালু করেন।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. আব্দুল গণি খোলা কাগজকে বলেন, দাফতরিক কাজে তিনি সচিবালয়ে আছেন। ডায়ালাইসিস শুরুর কথা জানিয়ে বলেন, ব্যবসায়ীদের ব্যবসায়ী মনোভাব থেকে বের হয়ে সেবার মনোভাব নিয়ে কাজ করলে সবাই ভালো থাকবে।

কিডনি বিভাগে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মোট ২৪টি ডায়ালাইসিস মেশিনের মধ্যে সচল আছে ১৮টি। বর্তমানে প্যাকেজসহ প্রতিদিন দুই শিফটে সর্বনিম্ন ৫০ থেকে সর্বোচ্চ ৮০ জন রোগীর ডায়ালাইসিস করা হয়। কিন্তু ডায়ালাইসিস কার্যক্রম চালু রাখতে দুটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট থাকলেও একটি নষ্ট হয়েছে প্রায় চার মাস আগে।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার ডায়ালইসিস বন্ধ থাকার খবর প্রকাশের জন্য লেকজিকোন-এর ম্যানেজার প্রকৌশলী শাকিল চৌধুরী খোলা কাগজের প্রতি কৃজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, রমেক কর্তৃপক্ষের আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে ডায়ালাইসিস কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হয়েছে।