মাদ্রাসা মাঠে পরীক্ষা

ঢাকা, রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কিশোরগঞ্জে ভবন সংকট

মাদ্রাসা মাঠে পরীক্ষা

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি ৯:২৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

print
মাদ্রাসা মাঠে পরীক্ষা

কালবৈশাখী ঝড়ে মাদ্রাসা ভবনের টিনের চালা উড়ে যাওয়ার দুই মাস পেরিয়ে গেলেও ভবন মেরামত না হওয়ায় নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ডাঙ্গাপাড়া মাহবুবিয়া দাখিল মাদ্রাসায় ভবন সংকটের কারণে মাঠে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে কোমলমতী শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, গত ২৩ এপ্রিল কালবৈশাখী ঝড়ে মাদ্রাসার একমাত্র ভবনটির টিনের চালা উড়ে যাওয়ার কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ভবনটি সংস্কারের জন্য মাদ্রাসা সুপার উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরে লিখিত আবেদন করার পরও ভবন সংস্কার না হওয়ায় ওই মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।

মাদ্রাসার সুপার আবদুল জলিল জানান, কিশোরগঞ্জ উপজেলায় যতগুলো মাদ্রাসা রয়েছে ফলাফলের দিক থেকে আমাদের মাদ্রাসা সবার ওপরে। কিন্তু মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত হওয়ার ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও একটি সরকারি ভবনের জন্য জনপ্রতিনিধি সংসদ সদস্যসহ সবার কাছে ধর্না দিয়ে এলে ভবন নির্মাণ হচ্ছে না। এমনকি গত ২৩ এপ্রিল কালবৈশাখী ঝড়ে মাদ্রাসার একমাত্র ভবনটির টিন উড়ে যাওয়ার দুই মাস পেরিয়ে গেলেও ভবনটি মেরামত না হওয়ায় শিক্ষার্থীদের অর্ধবার্ষিকী পরীক্ষা মাঠেই নেওয়া হচ্ছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এটিএম নুরুল আমিন শাহ বলেন, আমি গত সোমবার সকালে মাদ্রাসাটি পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। গত ২৩ এপ্রিল কালবৈশাখী ঝড়ে মাদ্রাসার একমাত্র ভবনটির টিনের চালা উড়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থীরা এ গরমের মধ্যে মাদ্রাসা মাঠে পরীক্ষা দিচ্ছে দেখে খুব খারাপ লেগেছে। আমি বিষয় উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবগত করেছি।

উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ মো. আবুল কালাম বারী পাইলট বলেন, শিক্ষার্থীদের কষ্টের কথা চিন্তা করে হলেও খুব তাড়াতাড়ি ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মাদ্রাসাটি মেরামত করা হবে।

মাদ্রাসা সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে বাহাগিলি ইউনিয়নের উত্তর দুরাকুটি গ্রামের মৃত আবদুর রহমানের ছেলে সমাজসেবক মাহুবার রহমান এলাকার অসহায় দরিদ্র ও হতদরিদ্র মানুষের সন্তানদের আরবী শিক্ষার কথা চিন্তা করে নিতাই ইউনিয়নের ডাঙ্গারহাটে এক একর জমির ওপর মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন।