করোনা সন্দেহে পরিত্যক্ত জায়গায় বাবাকে ফেলে গেলেন ছেলে!

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

করোনা সন্দেহে পরিত্যক্ত জায়গায় বাবাকে ফেলে গেলেন ছেলে!

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

print
করোনা সন্দেহে পরিত্যক্ত জায়গায় বাবাকে ফেলে গেলেন ছেলে!

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় করোনা সন্দেহে ৬০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা পিতাকে পরিত্যক্ত জায়গায় ফেলে যান তাঁর এক পাষন্ড ছেলে। বৃদ্ধা ছোবাহান আলীর শ্বাসকষ্ট থাকায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে তার একমাত্র ছেলে এমনটা করেন। রোববার রাতে উল্লাপাড়া পৌর শহরের পৌরবাস টার্মিনালের একটি পরিত্যক্ত জায়গায় ছোবাহান আলীকে রেখে চলে যান তার একমাত্র ছেলে নজরুল ইসলাম।

বৃদ্ধা ছোবাহান আলী গয়হাট্টা মানিকদহ গ্রামের মৃত এন্তাজ আলীর ছেলে।

ফেলে যাবার সময় বৃদ্ধা ছোবাহান আলীর ছেলে নজরুল ইসলাম তার বাবাকে বলেন, বাবা, তুমি এখানে এক রাত থাকো। কাল এসে তোমাকে নিয়ে যাব। এই মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে নজরুল ইসলাম তার বাবাকে রেখে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনা পুলিশ জানতে পেরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে উল্লাপাড়া মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি দীপক কুমার দাশ ও উপ-পরিদর্শক নুরে আলম সিদ্দিকী সেই বৃদ্ধা কে উদ্ধার করে পুলিশ পিক-আপে উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন এবং সেই বৃদ্ধা কে খাবারদাবার ও সুচিকিৎসা নিশ্চিত করেন।

উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক নুরে আলম সিদ্দিকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টা খুবই দুঃখ জনক,একটা ছেলে বাবাকে রাতের আধারে পরিত্যক্ত জায়গায় ফেলে যেতে পারে এটা কখনো ভাবা যায়না। কীভাবে তার ছেলে পিতার সঙ্গে এমন অমানবিক আচরণ করলেন। পুলিশ উদ্ধার না করলে রাতের বেলা হয়তো ওই অসুস্থ বৃদ্ধা কে শিয়াল কুকুরের তো খেয়ে ফেরতে পারতো।

উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায় ছোবাহান আলীকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তার নমুনা সংগ্রহ করা হবে।