ঈশ্বরদীতে পদ্মার চরে ভয়ংকর রাসেল ভাইপার

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ জুলাই ২০২০ | ১৯ আষাঢ় ১৪২৭

ঈশ্বরদীতে পদ্মার চরে ভয়ংকর রাসেল ভাইপার

শমিত জামান, ঈশ্বরদী, পাবনা ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ০৫, ২০২০

print
ঈশ্বরদীতে পদ্মার চরে ভয়ংকর রাসেল ভাইপার

ঈশ্বরদীর পদ্মার চরাঞ্চলে ভয়ংকর রাসেল ভাইপার সাপের উপদ্রব দেখা দিয়েছে। কৃষকরা জানান, ফসলের মাঠ এবং ঝোপঝাড় এমনকি বাসা বাড়িতেও দেখা মিলছে এই সাপের। ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউপির মাজদিয়া বড় পাড়া গ্রামের সেলিনা বেগম গত ৩০ মে রাতে নিজ ঘরে সাপের দংশনের শিকার হন। পরিবারের লোকজন সাপটিকে মেরে রোগীর সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে আসে। চিকিৎসকরা সাপের দেখা মিলছে। সম্প্রতি এই চরে কাজে এসে অনেকেই সাপের কামড়ের শিকার হয়েছেন।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র কনসালট্যান্ট আবু সালেহ মোহাম্মদ বলেন, গত এক মাসের মধ্যে ঈশ্বরদী, পাবনা সদর ও সুজানগর উপজেলায় অনেকবার দেখা মিলেছে বিশ্বের পঞ্চম স্থানে থাকা এই বিষধর জাতের সাপ। বর্ষা মৌসুমে আশপাশ লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে এই সাপ। তাই চরাঞ্চলে সাবধানে কাজ করতে হবে, কারণ এই সাপের বিষের প্রতিশেধক নেই বললেই চলে। 

পরিদর্শন জোনের প্রধান সহকারী কমিশনার (ভূমি) বলেন, পদ্মার এই চরাঞ্চল ফসল আবাদ ও গবাদিপশু বিচরণের অন্যতম স্থান। গত বছর শুষ্ক মৌসুমে এই অঞ্চলে বিষাক্ত বিছা দেখা গিয়েছিল। এবার সাপের কথা শোনা যাচ্ছে। তিনি কৃষকদের সাবধানে গামবুট পরে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন।

পরিদর্শন টিমের অন্য সদস্যরা হলেন সদর উপজেলার পিআইও আব্দুল করিম এবং সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান। আব্দুল করিম জানান, তারা এলাকা পরিদর্শনকালে কোনো সাপ দেখতে পাননি। তবে একাধিক কৃষক জানিয়েছেন বিভিন্ন সময় তারা সাপ দেখতে পেয়েছেন। এই জন্য তারা কাজ করতে ভয় পাচ্ছেন।

জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ বলেন, কৃষকদের মুখে শুনে একটি টিম চরে পাঠিয়ে ছিলাম। কিন্তু তারা সাপ দেখতে পায়নি। তারপরও সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে বলা হয়েছে।