রাজশাহী কার্যত লকডাউন

ঢাকা, রবিবার, ৭ জুন ২০২০ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

রাজশাহী কার্যত লকডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ৩:৫৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ০৬, ২০২০

print
রাজশাহী কার্যত লকডাউন

রাজশাহী জেলা গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকে কার্যত লকডাউন করা হয়েছে। এর আগে বিকাল থেকেই রাজশাহী মহানগরীকে লকডাউন করে দেওয়া হয়। এ সময়ে একেবারে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া নগরের বাইরে থেকে কোনো যানবাহন ঢুকতে দেওয়া হয়নি, আবার নগরী থেকেও কোনো যানবাহন বের হতে দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) একাধিক সূত্র।

এদিকে সন্ধ্যা ছয়টার পরে জেলা থেকেও আর কাউকে বের হতে বা ঢুকতেও দেওয়া হচ্ছে না। যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে সেনাবাহিনী ও পুলিশ কড়া সতর্ক অবস্থান নিয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই লকডাউন থাকবে। রাজশাহীর অদূরে বেলপুকুর ও কাটাখালিতে বসানো হয়েছে দুটি চেকপোস্ট। নগরীর নওদাপাড়া ও কাশিয়াডাঙ্গাতেও বসানো হয়েছে চেকপোস্ট।

আরএমপি’র মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) মো. গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, লকডাউন বিষয়টি ঠিক নয়। রাজশাহী নগরীতে অটো চলাচল সীমিত করতে পুলিশের তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। রাজশাহীর বাইরে থেকেও কোনো প্রকার যানবাহন নগরীতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এ ছাড়া সন্ধ্যা ৬টার পর থেকে ফার্মেসি ছাড়া কোনো প্রকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, দোকান খোলা থাকবে না।

এদিকে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারাদেশের ন্যায় রাজশাহীতেও অনিদিষ্টকালের জন্য মসজিদে জামাতে নামাজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সরকারি নির্দেশনা মোতবেক বাদ আসর থেকে নগরীর বিভিন্ন মসজিদে জামাতে নামাজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

মসজিদে ইমাম, মোয়াজ্জেম, খাদেম ও রক্ষনাবেক্ষণে দায়িত্বরতসহ পাঁচজন ছাড়া মসজিদে কাউকে নামাজ আদায় না করার জন্য বলা হয়েছে।

অন্যদিকে, রাজশাহীর আইডি হাসপাতলে আরও একজনকে আইসোলেশন রাখা হয়েছে। নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে আসা ১৮ বছরের ওই তরুণকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দিয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন। আর করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় খ্রিস্টান মিশন হাসপাতালের নার্সকে আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আয়োজিত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান করোনা চিকিৎসা টিমের আহ্বায়ক ডা. আজিজুল হক আজাদ।

তিনি আরও জানান, রামেক হাসপাতালের অবজারভেশন ওয়ার্ডে পাঁচজন রোগীকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনের অবস্থার উন্নতি হওয়ায় গতকাল সোমবার তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। আশা করা হচ্ছে, বাকি দুজনকে আজ মঙ্গলবার ছেড়ে দেওয়া হবে।