প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় ৯ প্রবাসীর নাম!

ঢাকা, শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০ | ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় ৯ প্রবাসীর নাম!

এইচ এম আলমগরি কবির, সিরাজগঞ্জ ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ০১, ২০২০

print
প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় ৯ প্রবাসীর নাম!

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নে প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় নয় প্রবাসীর নাম প্রকাশ হয়েছে। এ ঘটনায় সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বুধবার বারুহাস ইউপির চলতি প্রতিবন্ধী তালিকায় ওই নয় প্রবাসীর নাম পাওয়া যায়। সম্প্রতি ইতালী থেকে দেশে ফেরা সোহেল সরকার নামে এক ব্যক্তি সরকারি ওয়েবসাইটে ওই  ৯ জনের নাম দেখতে পান। পরে সাংবাদিকদের অভিযোগ করেন।

সোহেল সরকার উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের কাজিপুর গ্রামের সাহাদত সরকারের ছেলে।

৯ জন প্রবাসীরা হলেন- ১নং জহিরুল ইসলাম জুয়েল, ইতালি প্রবাসী, ২নং জাহাঙ্গীর আলম রুবেল আমেরিকার নিউইয়র্ক প্রবাসী, ৩ নং জাকারিয়া ইসলাম ও ৪নং জয়নাল আবেদীন রোজ, লন্ডন প্রবাসী, ৫ নং জহুরা খাতুন (৩নং ও ৪নং ব্যাক্তিদের নানী) লন্ডন প্রবাসী, ৬ নং কামরুজ্জামান ইতালি প্রবাসী, ৭ নং বিউটি খাতুন লন্ডন প্রবাসী, ৮নং সাথী ও ৯ নং বিদ্যুতের নাম দেওয়া আছে।

জানা যায়, সম্প্রতি ইতালি থেকে সোহেল সরকার নামে এক ব্যক্তি দেশে ফিরে নিম্ন আয়ের মানুষদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য বারুহাস ইউনিয়ন পরিষদে তালিকা খুঁজতে যান। সেখানে তিনি সরকারি ওয়েবসাইটে দেখতে পান, হতদরিদ্র প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় এক থেকে নয়জনের মধ্যে যাদের নাম রয়েছে তারা সবাই বিভিন্ন দেশে বসবাস করে এবং তারা আমার নানার বাড়ির সদস্য ও পার্শ্ববর্তী সগুনা ইউনিয়নের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন যাবৎ তারা সকলেই ইউরোপ, আমেরিকাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন।

সোহেল সরকার মুঠো ফোনে জানান, প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকার বিষয়ে তাড়াশ কাউরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আইয়ূবুর রহমান রাজন ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন। তিনি ফেসবুকে প্রকাশ করেছেন, বারুহাস ইউনিয়ন থেকে প্রতিবন্ধী ভাতা পাচ্ছেন সগুনা ইউনিয়নের কয়েকটি প্রবাসী পরিবার। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় বয়ে যাচ্ছে। যেহেতু আমি একজন প্রবাসী দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আমি নিম্ন আয়ের মানুষদের আর্থিক সহায়তা করব। তাই বিষটি খতিয়ে দেখতে পেলাম। যাহা অত্যান্ত নেক্কার জনক বলেও তিনি জানান।

ওই প্রতিবন্ধী তালিকায় নাম থাকা লন্ডন প্রবাসী জয়নাল আবেদীন রোজ তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন বারুহাস ইউনিয়নের প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকায় নাম থাকা ওই নয়জনই ইউরোপ, ইউ.কে ও আমেরিকা প্রবাসী। যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ ও সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের প্রতি আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

প্রতিবন্ধী তালিকার বিষয়ে বারুহাস ইউনিয়ন পরিষদের সচিব হেলাল উদ্দিন জানান,  ভুলক্রমে এই নাম গুলো তালিকা ভুক্ত হয়েছে। দ্রুত সংশোধন করব।

বারুহাস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোক্তার হোসেন জানান, প্রতিবন্ধী ভাতার তালিকা অনেক আগে থেকেই করা। সেভাবেই রয়ে গেছে। তবে অন্য ইউনিয়নের লোকজনের নাম থাকার কথা না। বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখব বলে তিনি জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা ইফ্ফাত জাহান বলেন, বিষয়টি আমি শুনে চেয়াম্যানকে অবগত করেছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।