গম ঘরে তুলতে পারছে না কৃষক

ঢাকা, শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০ | ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

স্থবির বাগান পরিচর্যা

গম ঘরে তুলতে পারছে না কৃষক

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি ১২:৪৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০২০

print
গম ঘরে তুলতে পারছে না কৃষক

করোনা ভাইরাসের কারণে বিপাকে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষসহ সীমান্তঘেষা বাঘা উপজেলার কৃষক ও আমচাষিরা।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বর্তমানে করোনা আতঙ্কের কারণে এ অঞ্চলের কৃষকরা তাদের প্রধান অর্থকারী ফসল আম বাগান পরিচর্র্যা করতে পারছে না। অপরদিকে জমিতে গম পেকে গেলেও লোকবলের অভাবে সেটি ঠিকমত ঘরে তুলতে পারছেনা। কারণ উপজেলার সর্বত্র পুলিশসহ সেনাবাহিনী অভিযান অব্যহত রয়েছে।

এমনও লক্ষ করা যাচ্ছে, এক সঙ্গে ৪-৫ জন মানুষ অবস্থান করা কিংবা মাস্ক ব্যবহার না করলে তাদের লাটি পেটা করা হচ্ছে। এদিক থেকে মানুষের মধ্যে সর্বদা ভয় এবং আতঙ্ক কাজ করছে। ফলে বিপাকে পড়েছেন নি¤œ আয়ের সব লোকজনসহ শ্রমিক ও দিনমজুর।

চা বিক্রেতা হামিদুল হক বলেন, গত চারদিন ধরে চয়ের দোকান বন্ধ রেখেছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্যার এসে দোকান বন্ধ করে দিয়ে গেছেন। এখন কি ভাবে চলবো ভেবে পাচ্ছিনা। তার মতে, এ ভাবে যদি চলতে থাকে তাহলে পরিবার পরিজন নিয়ে উপোশ থাকতে হবে। একই কথা বলের সেলুন ব্যবসায়ী বাচ্চু আলী।

বারখাদিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আমার পরিবারে একমাত্র আই- রোজগারের উৎস আম। গত বছর আমে বিপর্যয় হওয়ার কারণে অতিকষ্টে একটি বছর পার করতে চলেছি। এবার গাছে যথেষ্ট পরিমান মুকুল এসেছে। অথচ করোনা আতঙ্কের কারণে কোন লেবারই কাজে যেতে চাচ্ছে না। বর্তমানে বাগানের যে অবস্থা তাতে কিটনাশক প্রয়োগ করতে না পারলে আমে চরম বিপর্যয় হবে। একই কথা বলেন অন্য বাগান মালিক ও ব্যাবসায়ীরা।

কৃষক আব্দুল মালেক জানান, তার ৩ বিঘা জমিতে গম পেকেছে। কিন্তু এই মুহুর্তে গম কাটার জন্য তিনি কোন শ্রমিক পাচ্ছেন না। যাকেই ডাকা হচ্ছে তারা পুলিশ এবং সেনাবাহিনীর ভয়ে কেউ কাজে যেতে চাচ্ছেন না। ফলে তিনি অনেকটা দিশে হারা হয়ে পড়েছেন।

ইউএনও শাহিন রেজা বলেন, সমস্যা অনেক। তবে সব সমস্যার সমাধান এই মুহুর্তে দেওয়া যাবে না। দেশ এবং জনগণের স্বার্থ বিবেচনা করে রাষ্ট্র যে সিদ্ধান্ত নিবে সেটা আমাদের সবাইকে মেনে নিতে হবে।

তিনি কৃষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ফসল ফলানো এবং জমিতে কাজ করার বিষয়ে কোন রেড অ্যালাট জারি করা হয়নি। তিনি সমাজের হতদরিত্র জনগোষ্টির মাঝে আগামী দুই একদিনের মধ্যে বিনামূল্যে চাল বিতারণ করা হবে জানান।