বিলীন হচ্ছে জলজ প্রাণী

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬

শ্রী খাল ও তুলসীগঙ্গায় কালচে পানি

বিলীন হচ্ছে জলজ প্রাণী

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি ৭:৩৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

print
বিলীন হচ্ছে জলজ প্রাণী

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের আওয়ালগাড়ি গ্রামের শ্রীখাল ও পৌরসদরের তুলসীগঙ্গা নদীর পানির রঙ কালচে রঙ ধারণ করেছে। সেই সঙ্গে পানির দুর্গন্ধে অতিষ্ট স্থানীয় বাসিন্দারা। জয়পুরহাট চিনিকলের বর্জ্যের পানি ওই খাল ও নদীতে এসে পৌঁছার কারণেই এমনটি হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এর কারণ জানতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকিউল ইসলাম উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ও মৎস্য কর্মকর্তাকে যৌথভাবে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন।
অন্যদিকে চিনিকলের এমডি আনোয়ার হোসেন আকন্দ বলেন, চিনিকলের বর্জ্য নিজস্ব পুকুরেই ফেলা হয়। পরে সেখান থেকে নালা দিয়ে পানি তুলসীগঙ্গা নদীতে চলে যায়।

চিনিকলের পানিতে তুলসীগঙ্গা নদীর পানি দূষিত হয়েছে, এটা সঠিক নয়। এককভাবে চিনিকলকে দায়ী করা হচ্ছে। তবে চিনিকলে ইটিপি স্থাপনের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে এখানে মেশিন বসানো হবে। তখন বোঝা যাবে নদীর পানি কেন দূষিত হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, জামালগঞ্জ পাঁচমাথা থেকে তুলসীগঙ্গা নদী পর্যন্ত এবং পৌর শহরের সোনামুখী সেতুর দক্ষিণ অংশ থেকে শুরু করে তুলসীগঙ্গা নদীর পানি কালচে রঙ ধারণ করেছে। শ্রী খালটি এসে সোনামুখী সেতুর কাছে এসে মিলিত হয়েছে। সেতুর উত্তর থেকে দক্ষিণে পানির স্রোত রয়েছে। তবে সেতুর উত্তরে তুলসীগঙ্গা নদীর পানি ভালো রয়েছে।

বর্তমানে সেতুর দক্ষিণ পাশ থেকে হলহলিয়া রেলসেতু পর্যন্ত প্রায় সাত কিলোমিটার নদীপথের পানি কালচে রঙ হয়ে রয়েছে। পানি থেকে ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। নদীর মাছ মরে যাচ্ছে। ব্যাহত হচ্ছে সেচকাজ।

শ্রী খাল পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় লিমিটেডের সভাপতি আবু মোতালেব বলেন, জয়পুরহাট চিনিকলের দূষিত বর্জ্য পানি শ্রী খালে আসায় সমস্ত মাছ মারা যায় এবং খালের পানি এলাকার কোন কৃষক ব্যবহার করতে পারে না।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন আগেও শ্রী খাল ও তুলসীগঙ্গা নদীর পানি ভালো ছিল। খাল ও নদীপাড় এলাকার অনেক কৃষক এ পানি সেচকাজে ব্যবহার করতেন। বর্তমানে বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।