রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন কৃষক

ঢাকা, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২ | ১২ আষাঢ় ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন কৃষক

বগুড়া প্রতিনিধি
🕐 ৮:৩৪ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন কৃষক

পেঁয়াজ এখন সোনার চেয়ে দামি। এজন্য রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন কৃষক। ক্ষেত থেকে পেঁয়াজ চুরির আশঙ্কায় রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় কৃষকরা। বিশেষ করে চরাঞ্চলের পেঁয়াজ ক্ষেতের পাশে ঝুপড়ি ঘর তুলে সেখানে রাতে থাকছেন তারা।

জানা গেছে, ২ ডিসেম্বর রাতে সোনাতলার জোড়গাছা ইউনিয়নের মধ্য দীঘরকান্দি গ্রামের কৃষক ইয়াসিন আলীর দুই শতক জমি থেকে পেঁয়াজ চুরি হয়। ৪ ডিসেম্বর রাতে খাবুলিয়া, জন্তিয়ারপাড়া ও আউচারপাড়া চরের ৬ কৃষকের জমি থেকে পেঁয়াজ চুরি হয়। তাই বাধ্য হয়ে সরলিয়া, খাবুলিয়া, মহব্বতেরপাড়া, আউচারপাড়াসহ বিভিন্ন কৃষকরা রাত জেগে ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন। এসব এলাকার কৃষকরা জানান, প্রতি রাতেই জমি থেকে পেঁয়াজ চুরি হচ্ছে। বিভিন্ন এলাকায় পেঁয়াজ চুরির ঘটনায় তারা চিন্তিত। চুরি থেকে বাঁচতে জমিতে পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সোনাতলা থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মাছউদ চৌধুরী জানান, পেঁয়াজ চুরির কথা শুনলেও কোনো কৃষক অভিযোগ দেননি। বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৩ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৭০০ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে। অক্টোবর থেকে বারী ১-৫, লালতীর, তাহেরপুরী, ফরিদপুরীসহ বিভিন্ন জাতের পেঁয়াজ চাষাবাদ শুরু হয়। এরই মধ্যে বাজারে স্বল্প পরিমাণ পেঁয়াজ উঠেছে।

সোনাতলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জানান, প্রায় ২৫০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। আগামী দেড় থেকে দুই মাসের মধ্যে এসব পেঁয়াজ বাজারজাত করা সম্ভব হবে।

 
Electronic Paper