বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ

ঢাকা, রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ

পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি ৩:১৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৮, ২০১৯

print
বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ

নওগাঁর পত্নীতলায় এবার নজিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাদেক উদ্দিনের বিরুদ্ধে এক কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাটি বর্তমানে এলকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

জানা যায়, অভিযোগ ঠেকাতে চৌকিদার পাহারায় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে ভক্তভোগীর পরিবারকে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেও কোনো প্রতিকার পাননি বলে জানান ওই কলেজছাত্রী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নজিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে বিয়ের কথা বলে দৈহিক সম্পর্ক চালিয়ে আসছিল। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী গর্ভবতী হয়ে পড়লে বাচ্চা নষ্ট করার জন্য চেয়ারম্যান চাপ সৃষ্টি করেন। গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করতে না চাইলে ছোট মেয়ের বিয়ের পর তারা আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে করবে বলে বাচ্চাটি নষ্ট করতে বাধ্য করেন।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা জানান, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল ওই চেয়ারম্যানের সঙ্গে আঁতাত করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে। সেই সঙ্গে ৪০ লাখ টাকার চাঁদা দাবি করছে।

তবে নজিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যন সাদেক উদ্দিন সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।