নওগাঁয় বেহাল সড়কে দুর্ভোগ

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

নওগাঁয় বেহাল সড়কে দুর্ভোগ

নওগাঁ প্রতিনিধি ৪:১৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯

print
নওগাঁয় বেহাল সড়কে দুর্ভোগ

ছোট যমুনা নদীর দুই তীর জুড়ে অবস্থিত তিলোত্তমা শহর নওগাঁ। নওগাঁর প্রধান শহরটি পৌরসভার মধ্যে অবস্থিত। নওগাঁ পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা হলেও দীর্ঘদিন ধরে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে পৌরবাসী। বর্তমানে পৌরসভার পালপাড়া-ঘোষপাড়া রাস্তাসহ অধিকাংশ জনগুরুত্বপূর্ন রাস্তাগুলোর অবস্থা খুবই বেহাল। দীর্ঘদিন মেরামত কিংবা সংস্কার না করায় দুর্ভোগ দিন দিন চরম আকার ধারন করছে। কিন্তু এই বেহাল রাস্তাগুলো নিয়ে কোন পদক্ষেপ নেই পৌর কর্তৃপক্ষের।

জানা যায়, ১৯৬৩ সালে স্থাপিত নওগাঁ পৌরসভা। ৩৮.৬৪বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত নওগাঁ পৌরসভা। শহরের প্রধান সড়ক ছাড়া অধিকাংশ রাস্তাগুলোর বেহাল দশা। পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের সকল রাস্তাগুলো বছরের পর বছর সংস্কার কিংবা মেরামত না করায় বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। ওয়ার্ডের পালপাড়া ব্রিজের মোড় থেকে ঘোষপাড়া হয়ে শহরের মধ্যে আসার একমাত্র রাস্তাটির অবস্থা খুবই বেহাল ও বিপদজনক। রাস্তার অধিকাংশ স্থানের পাঁকা উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। শুকনো মৌসুমে তেমন কোন সমস্যা না হলেও বর্ষা মৌসুমে দুর্ভোগ চরম আকার ধারন করে। এই ওয়ার্ডে বসবাসরত প্রায় ১০হাজার মানুষদের চলাচলের জন্য একমাত্র এই রাস্তাটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিনিয়তই গর্তে ছোট-বড় যানবাহন উল্টে গিয়ে ঘটছে দুর্ঘটনা। স্কুলের শিক্ষার্থীদেরও প্রতিদিন চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুধু স্থানীয়রা নয়, এই রাস্তা দিয়ে নওগাঁ শহরের আসার জন্য রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার মানুষরাও চলাচল করে।

শহরের কালিতলা এলাকার বাসিন্দা সুমন কুমার বলেন, শহরের এসব রাস্তা দেখে মনে হয় যে এখনো আমরা বর্বর ও আদিযুগে বসবাস করছি। যে যুগে রাস্তা-ঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা তেমন উন্নত ছিলো না। কিন্তু একটি দেশের রাস্তা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন ছাড়া সামগ্রিক উন্নয়ন কোন ভাবেই সম্ভব নয়। ৪-৫বছর ধরে শহরের পালপাড়া ব্রিজের মোড় থেকে ঘোষপাড়া হয়ে শহরে প্রবেশের একমাত্র রাস্তাটির অবস্থা খুবই বেহাল। এই রাস্তার কোন সংস্কার কিংবা মেরামত না করায় এখন বিপদজনক মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করার সময় শিক্ষার্থীরা উল্টে পড়ে যায়, রাস্তার কাঁদায় নষ্ট হয় পোষাক।

নওগাঁ পৌরসভা মেয়র নজমুল হক সনি বলেন, ইতিমধ্যেই নগর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দুই ধাপের কাজ শুরু হয়েছে। বিশেষ করে হাসপাতাল রাস্তার সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে। বৃষ্টির কারণে কাজে সমস্যা হচ্ছে। এছাড়াও পালপাড়া রাস্তা, হলদিবাড়ি রাস্তাসহ অন্যান্য রাস্তার সংস্কার কাজের পরিকল্পনা উপরমহলে দেওয়া আছে। সরকার কর্তৃক অনুমোদন ও বরাদ্দ পেলেই পৌরসভার সকল বেহাল রাস্তার সংস্কার কাজ দ্রুত শুরু করা হবে।