উৎকোচের বিনিময়ে ‘পুতুল খেলার ঘর’

ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ | ৬ বৈশাখ ১৪২৬

উৎকোচের বিনিময়ে ‘পুতুল খেলার ঘর’

কামারখন্দ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯

print
উৎকোচের বিনিময়ে ‘পুতুল খেলার ঘর’

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে ‘জমি আছে ঘর নেই’ প্রকল্পে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য, চেয়ারম্যান, স্থানীয় কতিপয় আওয়ামী লীগ নেতা ও প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ অনিয়মে জড়িত।

প্রকল্পের আওতায় উপজেলায় ৭৫ জন উপকারভোগীর জন্য ঘর নির্মাণ ও টয়লেট স্থাপনের জন্য এক লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। উপজেলার জামতৈল, রায়দৌলতপুর, ঝাঐল ও ভদ্রঘাট ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ঘরের ব্যবহৃত টিন, কাঠ, বালি, সিমেন্ট ও আনুষঙ্গিক সরঞ্জাম নিম্নমানের এবং কোনো বাড়িতেই টয়লেট স্থাপন করে দেয়নি শুধু একটি করে স্ল্যাব দিয়েছেন।

হতদরিদ্র ভুক্তভোগীদের কয়েকজন অভিযোগ করে জানান, ঘর করে দেওয়ার কথা বলে ইউপি সদস্য এবং স্থানীয় কতিপয় নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান ১৫ থেকে ১৮ হাজার টাকা নেন। ভুক্তভোগীদের অনেকেই ঘর পাওয়ার জন্য সুদের ওপর ঋণ করে টাকা দিয়েছেন। কেউ কেউ আক্ষেপ করে বলেন, সরকার আমাদের যে ঘর দিয়েছে এটি পুতুল খেলার ঘর।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাকির হোসাইন অনিয়মের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, কারও কোনো অভিযোগ দেওয়ার কথা নয়। তবে প্রকল্পের শিডিউল চাইলে গণমাধ্যমকর্মীদের বিভিন্ন টালবাহানা করে এড়িয়ে যান প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা। ইউএনও জাহাঙ্গীর আলম জানান, ওই সময় আমি ছিলাম না, অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।