ধর্মচর্চা শান্তির, বিবাদের জন্য নয়

ঢাকা, সোমবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

ধর্মচর্চা শান্তির, বিবাদের জন্য নয়

আরমান জিহাদ
🕐 ৩:৩৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২১

ধর্মচর্চা শান্তির, বিবাদের জন্য নয়

ধর্মের জন্য মানুষ নয়, মানুষের জন্য ধর্ম। পৃথিবীতে মানুষ শান্তির জন্য কোনো না কোনো ধর্ম পালন করে। অনেক ধর্ম পৃথিবীতে রয়েছে। বিশেষ করে ইসলাম ধর্ম, খ্রিস্টান ধর্ম, হিন্দু ধর্ম, বৌদ্ধ ধর্ম বেশি প্রচলিত। পৃথিবীতে ঝগড়া-ফ্যাসাদ, হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণের মতো জঘন্য কাজগুলো থেকে মানুষকে একটি ধারায় আনার লক্ষ্যই হলো ধর্মের প্রকৃত উদ্দেশ্য। পৃথিবীর সব ধর্মই ভালো। কোনোটাকে খারাপ বলার অধিকার কারও নেই।

কোনো ধর্মেই কাউকে হিংসা করা, কাউকে হত্যা করা, কারও সম্পদ লুণ্ঠন করা, ধর্ষণ করা, অপরের হক বিনষ্ট করা, অন্যায়ভাবে আঘাত করা, অন্যের বিশ্বাসে আঘাত করার মতো শিক্ষা দেয় না। পৃথিবীতে মুসলমানদের কাছে কোরআন সবচেয়ে পবিত্র গ্রন্থ আর খ্রিস্টানদের বাইবেল। তেমনি হিন্দুদের বেদ, গীতাসহ বহু গ্রন্থ। এসব গ্রন্থ মানুষকে হিংসা বা অন্যের ধর্মের প্রতি হিংসা বাড়ে এমন কিছু শেখায় না। শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ধর্ম। যেমন ইসলাম শব্দের অর্থই হলো শান্তি। শান্তি কীভাবে আসবে? শান্তি কীভাবে পাব। পরিবারের শান্তি, সমাজের শান্তি, দেশের শান্তি, কবরের শান্তি সবকিছুকেই সুন্দরভাবে বর্ণনা করা হয়েছে পবিত্র কোরআনে।

আমি মুসলিম। আমার কর্তব্য আমার ধর্মীয় গ্রন্থ পড়া। ধর্মীয় গ্রন্থের আদেশ নিষেধসহ আল্লাহর আইন ফলো করা। এটা আমার ধর্ম। এগুলো করব আমার শান্তির জন্য। তেমনিভাবে অন্য ধর্মের লোকজনও স্ব স্ব ধর্ম পালন করবেন। ইসলাম যুদ্ধে বিশ্বাসী নয়। শান্তিতে বিশ্বাসী। অন্য ধর্মও তাই। মুসলমানদের কাছে মুসলমানের ধর্ম শ্রেষ্ঠ আর অন্যদের কাছে তাদের ধর্ম। বর্তমান সময়ে আমরা ধর্ম নয়, ব্যক্তিকে ফলো করি। ধর্মের নিয়ম নয়, অধর্মের চর্চা করি। এক ধর্মের সঙ্গে অন্য ধর্মের নয়, নিজেদের মধ্যেই লেগে থাকে হাজারো দ্বন্দ্ব। সাধারণ মানুষ ধর্ম বোঝে কমই। কোরআন পড়ে না। পড়লেও অর্থ বোঝে না।

সুতরাং একজন ধর্মীয় লেবাসধারী যা বলবেন তা-ই অনেকে সঠিক মনে করে নেন। কেননা বিষয়টি সম্পর্কে তারা অবগত নয়। ছোটখাটো বিষয় নিয়ে ঘটে যায় বিরাট দুর্ঘটনা। ঝরে যায় কিছু তাজা ও নিরীহ প্রাণ। তারা কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদের দেহ থেকে ঝরে লাল রক্তের বৃষ্টি। তারা কারা? শহীদ? মুজাহিদ? না! তারা কোনোটাই নয়। তারা মুর্খ, অধার্মিক। ধর্ম চায় শান্তি। যুদ্ধ নয়। নিজের ধর্ম তখনই শ্রেষ্ঠ যখন সেই ধর্মের ব্যবহার অন্য ধর্মের মানুষদের আকৃষ্ট করবে।

সুন্দর ব্যবহার, আকীদা, আমানতদারী, চারিত্রিক সৌন্দর্য ইত্যাদি দিয়ে নিজের ধর্মকে অন্যের কাছে প্রমাণ করা উচিত কতটা শ্রেষ্ঠ। মানুষ আটকে যায় ধর্ম ব্যবসায়ী ও কিছু কুচক্রী মহলে। তারা ধর্মের সৌন্দর্য নষ্ট করে, সম্মান নষ্ট করে। সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। ধর্ম থেকে মানুষকে দূরে ঠেলে দেয়। অন্য ধর্মের লোকদের মনে ঘৃণার সঞ্চার করে। ধর্ম মানুষের জন্য মানুষের শান্তির জন্য বিবাদের জন্য নয়।

আরমান জিহাদ : ছড়াকার, কটিয়াদী, কিশোরগঞ্জ
rxarman1997@gmail.com

 
Electronic Paper