তথাকথিত সিস্টেমে নারী উন্নয়ন

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

তথাকথিত সিস্টেমে নারী উন্নয়ন

ইলা লিপি ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৩, ২০২০

print
তথাকথিত সিস্টেমে নারী উন্নয়ন

জীবনে ডার্ক পেজ নামে পরপর দুটি শব্দ আছে। আমি মনে করি প্রতিটি নারীকে ডার্ক পেজের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। আমি যে কথাগুলো লিখব, বলব এসব কথা হাজার বছর ধরে কিছু মানুষ বলেছে। নারী উন্নয়ন, পরাধীনতা নামে প্রবন্ধ, নিবন্ধ, গল্প, উপন্যাস রচিত হয়েছে। তারপরও কিন্তু নারীমুক্তি ঘটেনি, হয়নি নারী উন্নয়নও। তাই আমার লেখা পড়ে কেউ বলে, এসব সেই পুরনো কাসুন্দি! নতুন কিছু লেখো। বাংলাদেশের নারীরা আদতে অলস। এরা নিজের কথা কখনো ভাবে না, নিজেকে যে রিপিয়ার করার প্রয়োজন আছে, সেটা জানে না। জানলেও ভয়ে জড়োসড়ো হয়ে থাকে। নারী একা চলতে ভয় পায়। পুরুষরা বোকাসোকা নারীদের স্ত্রী হিসেবে পারফেক্ট ভাবে। এরা শিক্ষিত, বুদ্ধিমান নারীকে পছন্দ করে না। তাই বাংলাদেশের শতকরা নিরানব্বই ভাগ নারী বোকার ভাব ধরে জীবন পার করে।

নারী অলস, অথর্ব, এরা নামে মাত্র প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা লাভ করে এক বিকৃত মানসিকতার অধিকারী হয়। তাই এদের নিয়ে নতুন এক ভাবধারার সমাজের বিবর্তন ঘটছে। এরা সহজ ও সুন্দরকে জটিল করে তোলে। এদের বোধের জাগরণ অত্যন্ত বিপদজনক কারণ এদের নিকট কোনো কথাই টিকতে পারে না। খোঁড়া যুক্তি আর অসুস্থ বোধের সমন্বয়ে এক জঘন্য সংজ্ঞা নিরূপণে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে। তাই তো আমার কলামে ও পুরনো কথা ঘুরে-ফিরে চলে আসে। সেদিন একটা সমস্যা ফেস করেছি। আমাকে বলা হলো চাকরি ঠিক রেখে বাদবাকি বাদ দিতে। তার মানে আমার লেখা বাদ দিতে। আশ্চর্য হই, এসব অলস ও ভীতু নারীর অ্যাডভাইস শুনে। না এরা নিজেকে নিয়ে ভাবে কিংবা অন্যর পক্ষে সমাধানের কোনো উপায় জানে! কিছু না জেনেই অশান্তির বীজ বপন করে।

এরা নিজেকে সুখী ও সমৃদ্ধির বরদানে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে ভেবে সুখ বোধ করে। চোখ বন্ধ করে একবার ভাবুন তো, আপনি আসলে কে? একজন মানুষ নাকি একজন প্রক্সি উম্যান। আপনি কি শুধু মনোরঞ্জনের জন্য জন্ম লাভ করেছেন? তো ধর্মগ্রন্থে আপনাকে শস্যক্ষেত্র বলা হয়েছে, ঠিকই আছে। একজন কর্মঠ মানুষ মাত্রই স্বাধীন মানুষ। সে আসলে কার সঙ্গে সম্পর্ক রাখবে, কাকে বাদ দিবে এটা একান্তই ওই মানুষের মর্জির ওপর ডিপেন্ড করে। আমাদের নির্বুদ্ধিতা নিয়ে ধর্মীয় মনস্তাত্ত্বিক চিন্তাধারায় হাজারো লাইন লেখা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আপনি মানবতাবাদী। অথচ নিজের সম্পর্কে সচেতন নন। তাহলে আপনার গোটা জন্ম নিয়ে আমার মতো মানুষকে মোটিভেশন মতামত লিখতে থাকব এটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়।

ইলা লিপি : বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকে কর্মরত
ela.lipi87@gmail.com