অন্যকে ঝুঁকিতে ফেলবেন না

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

অন্যকে ঝুঁকিতে ফেলবেন না

খোলামত ডেস্ক ৬:১৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০২০

print
অন্যকে ঝুঁকিতে ফেলবেন না

উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তুলনায় আমাদের দেশের জন্য করোনা ভাইরাস নিঃশন্দেহে মারাত্মক বিপর্যয় সৃষ্টি করতে পারে। যেহেতু এখনও এ ভাইরাসের জন্য কার্যকরী কোনো টিকা আবিষ্কার হয়নি। সুতরাং সচেতনতাই একমাত্র অবলম্বন এখন। এটা মূলত আক্রান্ত ব্যক্তির থেকে ছড়াচ্ছে তাই সচেতনতা পারে এটা রোধ করতে।

এ পর্যন্ত যে কয়জন রোগী শনাক্ত করা হয়েছে করোনা ভাইরাসে তাদের মধ্যে বিদেশ ফেরতের সংখ্যা বেশি এবং তাদের পরিবারের লোকজন সবাই। ভাইরাসটি যেহেতু আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি, কাশি, ছোঁয়া থেকে ছড়াচ্ছে, বিদেশ ফেরতদের সর্তকতা সবচেয়ে জরুরি। তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকাটা আবশ্যক।

আপনি বিদেশ থেকে অর্থ উপার্জন করে এতদিন দেশের উন্নতিতে অংশগ্রহণ করেছেন, পরিবারের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন। শুনতে খারাপ লাগলেও সত্য, সেই আপনি আজ আপনার পরিবার বা দেশের ক্ষতি করছেন একটু অসচেতনতার কারণে। একবার ভাবুন তো, আপনার জন্য আপনার পরিবারে মা, বাবা, ভাই, বোন বা আপনার সন্তান এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেল তখন কি নিজেকে ক্ষমা করতে পারবেন?

আমাদের দেশের মত এত ঘনবসতিপূর্ণ দেশের জন্য এই ভাইরাসটি শুধু মহামারী নয় হুমকিস্বরূপ। যার যার জায়গা থেকে আমাদের সবাইকে এখনই সচেতন হতে হবে।

মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। গ্রামের ব্যক্তিজীবনে এ ভাইরাস সচেতনতা খুব কম দেখা যাচ্ছে। তাই গ্রামের শিক্ষিত ও সচেতন ব্যক্তিদের সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। দিন দেশে আমরা সবাই মৃত্যুকে ভয় পাই। যদিও জানি মৃত্যুর নিয়ন্ত্রণ আমাদের হাতে নেই! আপনারা যারা বিদেশ থেকে এসেছেন আপনার পরিবার এবং দেশের এতগুলো মানুষের কথা ভেবে কিছুদিন নিজেকে অন্তত আড়াল করে রাখুন।

আমাদের এ স্বল্প আয়তনের দেশে যেন করোনা ভাইরাস মহামারি রূপ না নিতে পারে। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। সচেতনতা সৃষ্টি করি ও মাস্ক, হ্যান্ডওয়াশের দাম না বাড়িয়ে দাম আরও কমিয়ে দিই বা বিনামূল্যে বিতরণ করি। এ বৈশ্বিক মহামারিতে সবাই নিজের মানবিক গুণাবলিকে বিকশিত করি, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হই। আপনার বেঁচে থাকা যেন অন্যের মৃত্যুর কারণ না হয়। সে ক্ষেত্রে নিজের সঙ্গে শপথ করুন। নিজে বাঁচুন ও অন্যকে বাঁচতে সাহায্য করুন।

লতিফা আক্তার চুমকি, কুষ্টিয়া
lotifacumki@gmail.com