একজন সফল উদ্যোক্তার গল্প

পল্লব আহমেদ সিয়াম / ১২:২৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২,২০২০

সরকারি চাকরির মোহে যখন ছুটে চলছে লাখো তরুণ, তখনও কিছু স্বপ্নবাজ তরুণ-তরুণী নিজেরাই উদ্যোগ গ্রহণ করছে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর। একদিকে পড়ালেখা অন্যদিকে ক্ষুদ্র ব্যবসা, দুটোই সমানতালে চালিয়ে নিচ্ছেন এবং টিকে থাকার লড়াইয়ে সামিল হচ্ছেন তারা। বাংলাদেশের অসংখ্য তরুণ উদ্যোক্তাদের মধ্যে রয়েছেন ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থী আবু ইউসুফ। এই স্বপ্নবাজ তরুণ উদ্যোক্তার গল্প শুনাব আপনাদের। আবু ইউসুফের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন- পল্লব আহমেদ সিয়াম।

উদ্যোক্তা হিসেবে আপনার শুরুটা কেমন ছিল?
আবু ইউসুফ : অল্প কিছু মূলধন আর কয়েকটি টি-শার্ট নিয়ে ২ নভেম্বর ২০১৯ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন শাহ হল থেকে ‘হালাল শপিং জোন’ এর যাত্রা শুরু হয়েছিল। বর্তমানে সারা বাংলাদেশে ২৭ টি জেলা এবং ৫টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৪০ জন শিক্ষার্থীদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে পেরেছি।

শিক্ষার্থীও কঠোর পরিশ্রম করছেন কিভাবে?
আবু ইউসুফ : আমার এই সফলতার মূলে রয়েছে আমার বিভাগের অভিভাবকম-লী সম্মানিত স্যারগণ এবং আমার বন্ধুমহল। আমি যখন ক্ষুদ্র পরিসরে কাজ শুরু করেছিলাম তখন অনেকেই ঠাট্টা, তামাশা করত কিন্তু আমার বিভাগের শিক্ষক এবং বন্ধুরা আমাকে উৎসাহ দিতেন। তাদের অনুপ্রেরণাতেই আজ আমি এই জায়গায়।

যেহেতু আপনি একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, চাকরি না খুঁজে কেন উদ্যোক্তার পেছনে ছুটলেন?
আবু ইউসুফ : ২০১৬-১৭ অর্থবছরের হিসাব মতে সারা দেশে বেকারের সংখ্যা প্রায় ২৬ লক্ষ ৭৭ হাজার জন। এই বেকারদের মধ্যে শিক্ষিত তরুণ-তরুণী প্রায় ১০ লক্ষ ৪৩ হাজার শিক্ষার্থী যারা উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাস অর্থাৎ শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা প্রায় ৪০ শতাংশ। দেশে প্রতি বছর উচ্চশিক্ষা অর্জন করে প্রায় ১০ লক্ষ এর বেশি শিক্ষার্থী। সিপিডি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে প্রতিবছর প্রায় ২১ লক্ষ কর্মক্ষম মানুষ শ্রমবাজারে প্রবেশ করছে কিন্তু কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে ১৩ লক্ষ! ফলে প্রতিবছর ৮ লক্ষ মানুষ বেকার থেকে যাচ্ছে! সুতরাং যে পরিমাণ শিক্ষিত জনশক্তি শ্রমবাজারে প্রবেশ করছে, দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, তাদের কর্মক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে অতি সীমিত! ফলে দিন দিন বেকারত্ব বেড়েই চলেছে! তাই আমি মনে করি সরকারি চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হতে হবে। কারণ বর্তমান সময়ে বেকারত্ব দূরীকরণে একজন সফল উদ্যোক্তার কোনো বিকল্প নেই।

আপনি কী কী পণ্য নিয়ে কাজ করছেন?
আবু ইউসুফ : আমরা সাধারণত ছেলেদের সকল পোশাক নিয়ে কাজ করি, যেমন প্যান্ট, শার্ট, টি-শার্ট, হুডি, মোজা, ব্লেজার, কোট, কটি ইত্যাদি। এছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানের লোগো সম্বলিত টি-শার্ট, শিক্ষা সফরের টি-শার্ট, র্যাগডে র্যামডের টি-শার্ট সহ সকল পণ্য নিয়ে কাজ করছি। এছাড়া শীতের সময় সকল প্রকার শীতের কালেকশন নিয়েও কাজ করছি।

আপনার প্রতিষ্ঠানের গ্র্রাহক কারা?
আবু ইউসুফ : প্রাথমিক পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকগণ আমার মূল গ্রাহক ছিল কিন্তু বর্তমানে অনলাইন কেন্দ্রিক হওয়ায় সারা দেশেই আমাদের গ্রাহক রয়েছে।

নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য আপনার কী কী পরামর্শ রয়েছে?
আবু ইউসুফ : স্বাবলম্বী হয়ে বেঁচে থাকার স্বার্থকতাটাই আলাদা। তাই বলব যা করতে হবে ছাত্রজীবন থেকেই শুরু করতে হবে, হোক না সেটা ক্ষুদ্র পরিসরে। একজন উদ্যোক্তা হতে হলে আপনাকে অবশ্যই ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে লেগে থাকতে হবে প্রতিবন্ধকতা তো থাকবেই, তবে ইচ্ছা থাকলে তা অতিক্রম করা সম্ভব। একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে অবশ্যই ধৈর্য, পরিশ্রম এবং আন্তরিক হতে হবে।

আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
বর্তমানে প্রায় ৪২টি জেলায় আমাদের সেবা অব্যাহত রয়েছে। একদিন সারা দেশে আমাদের সেবা পৌঁছাবে এবং ‘হালাল শপিং জোন’ একটা ব্র্যান্ড হিসেবে দাঁড়াবে ইনশাআল্লাহ।

সম্পাদক ও প্রকাশক : আহসান হাবীব
উপদেষ্টা সম্পাদক : মোশতাক আহমেদ রুহী

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : বসতি হরাইজন, ১৭-বি, বাড়ি-২১, সড়ক-১৭, বনানী, ঢাকা
ফোন : বার্তা-৯৮২২০৩২, ৯৮২২০৩৭, মফস্বল-৯৮২২০৩৬
বিজ্ঞাপন-৯৮২২০২১, ০১৭৮৭ ৬৯৭ ৮২৩,
সার্কুলেশন-৯৮২২০২৯, ০১৮৫৩ ৩২৮ ৫১০
Email: kholakagojnews7@gmail.com
            kholakagojadvt@gmail.com