বারবার রিভিশন দাও

বশির আহমেদ / ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৩,২০২০

বিশেষ অংশ এবং পরিকল্পনায় রঙিন কোড করা: লেখাপড়ার অন্যতম কার্যকর উপায় এটি। পড়ার কাজটি কিভাবে চালিয়ে যাবে তার পরিকল্পনা অবশ্যই থাকতে হবে। বইয়ের গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো রঙিন মার্কার দিয়ে চিহ্নিত করে রাখুন। ভিন্ন ধরনের অংশের জন্য বিভিন্ন রঙ ব্যবহার করা বুদ্ধিমানের কাজ। যেমন কুইজের অংশ গোলাপি, বিভিন্ন টেস্ট হালকা সবুজ, আন্ডার লাইনে অংশ হালকা নীল ইত্যাদি। এই কালার কোড সিস্টেম গুছিয়ে লেখা-পড়া চালিয়ে যাওয়ার কার্যকর একটি উপায়।

সময় বের করে পড়া

পরীক্ষার আগের রাতে সব পড়ে শেষ করা অসম্ভব ব্যাপার। তাই বেশ কিছুদিন সময় বের করে পড়তে হবে। অল্প সময়ের মধ্যে পড়ে পরীক্ষার ঝামেলা মেটানো যায়। কিন্তু সে পড়ায় শেখা হয় না। ফলে ভবিষ্যতে বিপদে পড়তে হবে। তাই বেশ কিছুদিন হাতে নিয়ে হালকা মেজাজে পড়লেও শিখতে পরো। এতে পরীক্ষা হয়ে আসবে আরো সহজ এবং অনেক ভালো।

শিক্ষকদের সঙ্গে পরামর্শ

শিক্ষক কখনোই আপনাকে ফিরিয়ে দিতে পারেন না। শিক্ষককে ভয়েরও কারণ নেই। তিনিই আপনার শিক্ষক। শেখা বা পরামর্শ নিতে তার কাছে গেলে তিনি তার শিক্ষার্থীকে অবশ্যই শিখিয়ে দেবেন। শিক্ষার্থীর সমস্যা মেটাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন শিক্ষক। কাজেই পরীক্ষা বিষয়ে পরামর্শ পেতে শিক্ষকদের দ্বারস্থ হন। তাহলেই ভালো রেজাল্ট করা সম্ভব।

পয়েন্ট হাইলাইট

বইয়ের কি-পয়েন্টগুলো হাইলাইট করে নিবে। পড়াশোনার সুবিধার জন্য নিজের বইয়ের গুরুত্বপূর্ণ অংশ মার্কার দিয়ে হাইলাইট করবে। সেগুলো বারবার দেখে নিতে সুবিধা হবে।

স্লাইড শো বানিয়ে পড়াশোনা

ডিজিটাল পদ্ধতিতে পড়াশোনা করতে পার। বিশেষ নোটগুলোকে কম্পিউটারে স্লাইড শো বানিয়ে পড়বে। এতে মনে ভালোমতো ঢুকে যাবে সবকিছু।

পরিকল্পনা বানিয়ে পড়াশোনা

পড়াশোনাকে বেশি কার্যকর করতে হলে পরিকল্পনা দরকার। পড়াশোনার, বিষয় আর পড়ার পদ্ধতি সবকিছু নিয়ে সময়সূচি করে নিতে হবে। তারপর সেই সময় অনুযায়ী পড়াশোনা চালিয়ে যাবে।

নিজের পরীক্ষা নিজেই দিবে

প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার মতো করে বন্ধুরা একসঙ্গে বা একাই পরীক্ষা দিতে পারো। এতে মূল পরীক্ষা নিয়ে যত অজানা আশঙ্কা কেটে যাবে। অধিকাংশ যে ক্ষেত্রে দেখা গেছে এসব পরীক্ষামূলক পরীক্ষা মূল পরীক্ষার কাছাকাছি হয়ে থাকে।

বারবার পড়বে

একই পড়া কয়েকবার করে দেখে নিও। এতে মাথায় বসে যাবে সবকিছু। পড়ার বিশেষ পয়েন্টগুলোতে চোখ বুলিয়ে নিতে হবে। বারবার মুখস্থ করতে হবে না। হাইলাইট করা অংশগুলোতেও চোখ রাখো। একবার মুখস্থ করে কয়েকবার শুধু দেখলেই তা ঠোঁটস্থ হয়ে যাবে।

নিয়মিত রুটিন করে অনুশীলন

যা পড়তে হবেই তা পড়ছি-পড়বো বলে ফেলে রাখবে না। অন্তত পরীক্ষা এগিয়ে এলে এমনটি করার সুযোগ নেই। এ কাজটির জন্যই পরীক্ষার আগের রাতে মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। নিয়মিত রুটিন করে অনুশীলনের কাজটি চালিয়ে যাও। দেখবে, পরীক্ষা আগ দিয়ে প্রায় সব প্রস্তুতি গুছিয়ে এসেছে।

মনোযোগ আত্মবিশ্বাস

মনোযোগ ও আত্মবিশ্বাস না থাকলে পরীক্ষায় ভালো করা সম্ভব নয়। এটা রপ্ত করতে পারলে সাফল্য অনেক গুণ বেড়ে যাবে। তাই সর্বদা মনোযোগ ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে পড়াশোনা করলে ভালো করবে।

বশির আহমেদ

প্রভাষক, মেহেরপুর সরকারি কলেজ মেহেরপুর।

সম্পাদক ও প্রকাশক : আহসান হাবীব
উপদেষ্টা সম্পাদক : মোশতাক আহমেদ রুহী

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : বসতি হরাইজন, ১৭-বি, বাড়ি-২১, সড়ক-১৭, বনানী, ঢাকা
ফোন : বার্তা-৯৮২২০৩২, ৯৮২২০৩৭, মফস্বল-৯৮২২০৩৬
বিজ্ঞাপন-৯৮২২০২১, ০১৭৮৭ ৬৯৭ ৮২৩,
সার্কুলেশন-৯৮২২০২৯, ০১৮৫৩ ৩২৮ ৫১০
Email: kholakagojnews7@gmail.com
            kholakagojadvt@gmail.com