আয় বাড়ানোর আমল

খোলা কাগজ ডেস্ক / ৯:১৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১১,২০১৯

প্রশ্নটি করেছেন মিথিলা তাবাসসুম, পীরগঞ্জ, রংপুর থেকে।

একটি প্রবাদ আমরা সবাই জানি- ‘অর্থই সকল অনর্থের মূল’। দুনিয়া সব অনিষ্টের মূল। তবু দুনিয়ায় ভারসাম্যপূর্ণ জীবনযাপনের জন্য প্রয়োজন পরিমাণ অর্থ এক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এ কথাকে কোরআন ও হাদিসে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। দুনিয়ার জীবনে অর্থ-সম্পদ যেমন আল্লাহর পক্ষ থেকে পরীক্ষা হতে পারে, অন্যদিকে জীবন পরিচালনায় তা আল্লাহর পক্ষ থেকে নেয়ামতও। সুতরাং, আল্লাহর এ নেয়ামত সংগ্রহে আমরা চেষ্টা করতে পারি।

সুদের মাধ্যমে মানুষের সম্পদ বিনষ্ট হয়। সুতরাং, সর্বাবস্থায় সুদ থেকে নিরাপদ দূরত্ব অবলম্বন করুন। কোরআনে বলা হয়েছে- আল্লাহতায়ালা সুদকে নিশ্চিহ্ন করেন এবং দান খয়রাতকে বর্ধিত করেন। (সুরা বাকারা-২৭৬)।

কেউ যদি তার সম্পদকে বৃদ্ধি করতে চায়, তবে তার উচিত তার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে সম্পর্ককে দৃঢ় রাখা। হজরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) থেকে বর্ণিত- রসুল (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি কামনা করে তার রিজিক প্রশস্ত করে দেওয়া হোক এবং তার আয়ু দীর্ঘ করা হোক সে যেন তার আত্মীয়দের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখে (বুখারি, মুসলিম)।

জীবনের সর্ব অবস্থায় আল্লাহর দেওয়া নেয়ামতের জন্য কৃতজ্ঞ থাকা ও শোকর করা আমাদের জন্য অন্যতম কর্তব্য। এর মাধ্যমে আমরা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করতে পারি এবং নিজেদের সম্পদও বৃদ্ধি করে নিতে পারি। কোরআনে আল্লাহ বলেছেন- আর যখন তোমাদের রব ঘোষণা দিলেন, ‘যদি তোমরা শুকরিয়া আদায় করো, তবে আমি অবশ্যই তোমাদের বাড়িয়ে দেব, আর যদি তোমরা অকৃতজ্ঞ হও, নিশ্চয় আমার আজাব বড় কঠিন’ (সুরা ইবরাহিম-৭)।

আল্লাহ আমাদের তাঁর নেয়ামতের অংশ হিসেবে কল্যাণকর সম্পদ দান করুন। আমিন!

সম্পাদক : ড. কাজল রশীদ শাহীন
প্রকাশক : মো. আহসান হাবীব

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : বসতি হরাইজন, ১৭-১৮-বি, বাড়ি-২১, সড়ক-১৭, বনানী, ঢাকা
ফোন : বার্তা-৯৮২২০৩২, ৯৮২২০৩৭, মফস্বল-৯৮২২০৩৬
বিজ্ঞাপন-৯৮২২০২১, ০১৭৮৭ ৬৯৭ ৮২৩,
সার্কুলেশন-৯৮২২০২৯, ০১৮৫৩ ৩২৮ ৫১০
Email: editorkholakagoj@gmail.com
            kholakagojnews7@gmail.com