ফের খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন

ঢাকা, বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০ | ১৮ চৈত্র ১৪২৬

ফের খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:০২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০

print
ফের খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবারও আবেদন করা হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার কারণ দেখিয়ে এ আবেদন করা হয়। মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় জামিন আবেদন করা হয় বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। সর্বশেষ গত ডিসেম্বরে আপিল বিভাগে জামিন আবেদন খারিজ করে দেওয়ার পর দুই মাসের মাথায় আবারও জামিন আবেদন করা হলো।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন জানিয়েছেন, আদালতের দফতরে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার এ জামিন আবেদন হাইকোর্টে তোলা হবে।

জামিন আবেদনে যুক্তি দেখানো হয়-খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে তার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না। তাই জামিন পেলে তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যাবেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন আরও বলেন, বুধবার আমরা জামিন আবেদন হাইকোর্টে দাখিল করব। তার আরেক আইনজীবী সগীর হোসেনও বলেন, আদালতের দফতরে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। জামিন পেলে তিনি চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যাবেন।

জিয়া চ্যারিটেবল মামলায় এর আগে ২০১৯ সালের ৩১ জুলাই বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করেছিলেন। এরপর ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বর হাইকোর্টের খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের করেন তার আইনজীবীরা। আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় ১৪১ পৃষ্ঠার ওই আপিল আবেদন দাখিল করা হয়।

ওই আপিলের শুনানি নিয়ে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন চেয়ে আদেশ দেন আপিল আদালত। তবে শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার জামিন দেননি আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগ সর্বশেষ গত ডিসেম্বর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন পর্যবেক্ষণসহ খারিজ করে দেন। ওই খারিজ আবেদনের বিরুদ্ধেও রিভিউ (পুনর্বিবেচনা) করার প্রক্রিয়া চলছে।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ঢাকার একটি বিশেষ জজ আদালত খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। ওই সাজা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। এ ছাড়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছরের সাজার বিরুদ্ধে আপিল করেন খালেদা জিয়া। ওই আবেদন আপিল বিভাগে শুনানির জন্য অপেক্ষমাণ রয়েছে।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৬টি মামলা বর্তমানে বিচারাধীন থাকলেও কারামুক্তিতে বাধা মাত্র দুই মামলা। নানা জটিলতায় মুক্তি মিলছে না খালেদা জিয়ার। খালেদা জিয়ার কারামুক্তিতে এখন অন্তত দুই মামলায় জামিন পেতে হবে।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি আছেন খালেদা জিয়া। গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন এই বিএনপিপ্রধান। বিএনপি শুরু থেকেই এ মামলাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা বলে আসছে। জামিন পাওয়ার যোগ্য হলেও খালেদাকে সরকার জামিন দিচ্ছে না বলে বিএনপির অভিযোগ।

এদিকে খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেওয়ার সুপারিশ করতে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়ে আবেদনও করা হয়। গত ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুরে খালেদা জিয়ার ছোটভাই শামীম ইস্কান্দার স্বজনদের পক্ষ থেকে এই আবেদন করেন।

অন্যদিকে খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে সরকারকে ‘নমনীয়’ হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ফোন করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ওবায়দুল কাদের নিজেই সাংবাদিকদের বিষয়টি জানিয়েছেন।

যদিও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন তারা খালেদা জিয়ার জামিন চাইলেও প্যারোল নিয়ে কোনো কথা বলেননি। এরমধ্যেই জামিন চেয়ে ফের উচ্চ আদালতে আবেদন করলেন কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন।