অবিভক্ত ঢাকা সিটির শেষ মেয়র খোকার শেষ ইচ্ছা ছিল…

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অবিভক্ত ঢাকা সিটির শেষ মেয়র খোকার শেষ ইচ্ছা ছিল…

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৪, ২০১৯

print
অবিভক্ত ঢাকা সিটির শেষ মেয়র খোকার শেষ ইচ্ছা ছিল…

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে রণাঙ্গনের গ্যারিলা যোদ্ধা ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা মারা গেছেন। নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটের দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা ক্যানসার চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর দুর্নীতি মামলায় তার সাজা হয়। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি হয়। এরপরও বারবার দেশে ফিরতে চেয়েছিলেন খোকা। কিন্তু শারীরিক অবস্থার কথা চিন্তা করে ফেরা হয়নি তার।

জানা যায়, বাবার শেষ ইচ্ছার কথা জানাতে সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন রোববার সকালে ফোন করেছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে।

পরে রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক দোয়া অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব খোকার শেষ ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেন। মুক্তিযোদ্ধা খোকার সেই ইচ্ছাটা পূরণ হওয়ার আগেই তিনি না ফেরার দেশে চলে গেলেন।

মির্জা ফখরুল খোকার শেষ ইচ্ছার কথা জানিয়ে বলেন, রোববার সকালে সাদেক হোসেন খোকার ছেলে আমাকে ফোন করে বলেছেন, তার বাবার ইচ্ছাটা সে পূরণ করতে চায়। তিনি যেন দেশে ফিরতে পারেন তার উদ্যোগ নিতে আমরা সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গেও একাধিকবার খোকা দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন। কিছু দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগেও বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান টুকুর সঙ্গে ফোন করে দেশে আসার আকুতির কথা জানিয়েছেন।

হাসপাতালে যাওয়ার আগে সাদেক হোসেন খোকা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আক্ষেপ করে বলেন, ‘জীবনবাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। দেশের মাটিতে বিদায় হবে কিনা আল্লাহ জানেন। আমার জন্য দোয়া করো।’

খোকার জন্য দোয়া মাহফিলে বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, সাদেক হোসেন খোকা আমাদের ও তার বন্ধুদের বলেছেন যে, ‘দেশের মাটিতেই যেন আমার কবর হয়’।

এদিকে সাদেক হোসেন খোকার অবস্থা সংকটাপন্ন শুনে ভেঙে পড়েন তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তার সুস্থতা কামনায় একটি আবেগঘন খোলা চিঠি লেখেন। সেটি নিজের ফেসবুক ওয়ালে দেন মির্জা আব্বাস। সেখানে তিনি লেখেন, ‘সুস্থ হয়ে ফিরে এসো খোকা, ফিরো এসো। আমি তোমার অপেক্ষায় থাকব।’

মির্জা আব্বাসের শেষ ইচ্ছা আর পূরণ হলো না। ‘অসুস্থ না হতাম, তা হলে দেশে গিয়ে জেলে যেতাম’- খোকার এমন ইচ্ছাও পূরণ হলো না। সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিলেন এ রাজনীতিক।

ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে যান সাদেক হোসেন খোকা। তারপর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন বিএনপির এ নেতা।

নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১টার সময় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।