সমালোচনার মুখে রাতেই ফিরলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সমালোচনার মুখে রাতেই ফিরলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বিদেশে কেন প্রশ্ন সংসদীয় কমিটির

নিজস্ব প্রতিবেদক ৯:১৯ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ০১, ২০১৯

print
সমালোচনার মুখে রাতেই ফিরলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দেশের ডেঙ্গু প্রকোপ রোধে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঈদের ছুটি বাতিল করে খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিদেশ ভ্রমণে যাওয়ায় তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতেও চলে ব্যাপক তোলপাড়। তবে চলমান জরুরি পরিস্থিতিতে ভ্রমণ সংক্ষিপ্ত করে গতকাল মঙ্গলবার রাতেই দেশে ফেরেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, স্বাস্থ্যমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সর্বশেষ ডেঙ্গু পরিস্থিতি ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ নিয়ে প্রেস ব্রিফিং করবেন। গত ২৮ জুলাই স্বাস্থ্যমন্ত্রী সপরিবারে মালয়েশিয়া যান। আগামী ৪ আগস্ট দেশে ফেরার কথা ছিল তার।

এদিকে গত মঙ্গলবার ডেঙ্গু ও বন্যা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্য বিভাগের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়। একই সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণে থাকা চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণ স্থগিত করে তাদের চিকিৎসাকাজে যোগদান করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ ছাড়া ঈদুল আজহার ছুটিতে ঢাকায় থাকা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঢাকা ছাড়তে সরকার নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে ডেঙ্গু, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও গুজব প্রতিরোধ-সংক্রান্ত পর্যালোচনা সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিদেশে কেন
প্রশ্ন সংসদীয় কমিটির : প্রাণঘাতী ডেঙ্গু যখন সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ছে, তখন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক কেন বিদেশ সফরে-এ প্রশ্ন তুলেছে সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো জবাব দেওয়া হয়নি। কমিটি সব হাসপাতাল ও অন্যান্য চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রে চিকিৎসক-নার্সদের উপস্থিতি এবং সেবার গুণগত মান বাড়াতে মনিটরিং কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার সুপারিশ করেছে।

গতকাল বুধবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সভায় কমিটির দুজন সদস্য এ প্রশ্ন তোলেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে কমিটির সভাপতি আলী আশরাফ ও সদস্য মইনউদ্দীন খান বাদল এই সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বিদেশ সফর নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন। তারা জানতে চান, এ সময়ে মন্ত্রী কেন বিদেশ সফরে গেলেন?

এ সময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ডেঙ্গু মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কোনো কোনো এলাকায় মশার ঘনত্ব বেশি ও ডেঙ্গুর আশঙ্কার কথা সিটি করপোরেশনের দুই মেয়রকে জানানো হয়েছিল। মশক নিধন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাজ নয়। এটা সিটি করপোরেশনের করার কথা। তবে এ ব্যাখ্যায় কমিটি পুরোপুরি সন্তুষ্ট হয়নি। এ সমস্যা মোকাবেলায় তদারকি আরও বাড়ানোর সুপারিশ করেছে কমিটি।

এদিকে সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সব সরকারি বিভাগকে সমন্বিতভাবে সঠিক ও সময়োচিত পদক্ষেপ নেওয়া এবং আরও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

মো. আলী আশরাফের সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য মো. দবিরুল ইসলাম, মো. মুজিবুল হক, মইনউদ্দীন খান বাদল, আবদুল মান্নান, ফখরুল ইমাম ও মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বৈঠকে অংশ নেন।