দলে-সংসদে এরশাদের উত্তরসূরি চূড়ান্ত

ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

দলে-সংসদে এরশাদের উত্তরসূরি চূড়ান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক ১১:০৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৫, ২০১৯

print
দলে-সংসদে এরশাদের উত্তরসূরি চূড়ান্ত

রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ লাইফ সাপোর্টে। মাইডোলিসপ্লাস্টিক সিনড্রোমে আক্রান্ত ৯০ বছর বয়সী এরশাদকে গত ২২ জুন সকালে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালটিতে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার ফুসফুস ও কিডনিতে সংক্রমণ ধরা পড়ে। গতকাল তার ডায়ালাইসিস করা হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর থেকেই তার অবস্থা কখনো উন্নতি হচ্ছে, আবার কখনো অবনতি হচ্ছে। তবে এখনো তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এরশাদের শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তার অনুপস্থিতিতে দলের চেয়ারম্যানের হাল কে ধরবেন এবং সংসদে বিরোধী দলের নেতার স্থানে কে আসীন হবেন তা নিয়ে দলের মধ্যে নানা গুঞ্জন চলছে। অসুস্থ হওয়ার আগে স্ত্রী রওশন এরশাদকে সংসদে বিরোধীদলের নেতা এবং ভাই জি এম কাদেরকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন। উত্তরসূরি হিসেবে দলের এ দুই সিরিয়র নেতাকে বেছে নেওয়ার পেছনে ঐক্যকেই বড় মাপকাঠি বিবেচনা করেছেন এরশাদ। জাতীয় পার্টির দায়িত্বশীল একাধিক নেতা বিষয়টি স্বীকার করলেও এ মুহূর্তে কেউই প্রকাশ্যে কিছু বলতে রাজি নন।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, এরশাদের অনুপস্থিতিতে দলের হাল ধরতে পারেন তার ছোট ভাই জিএম কাদের। তিনি বর্তমানে দলটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। আর সংসদের বিরোধী দলের নেতার আসনে বসতে পারেন এরশাদের স্ত্রী বেগম রওশন এরশাদ। সূত্রটি বলছে- দলে জিএম কাদের একজন ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি। সব মহলে তার একটি গ্রহণযোগ্যতা আছে। তার পক্ষেই কেবল এরশাদের ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব। জিএম কাদের দলকে সুসংগঠিত এবং ঐক্যবদ্ধ করে রাখতে পারবেন বলে নেতাকর্মীরা মনে করছেন।

এরশাদের অনুপস্থিতিতে দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের ছাড়া অন্য কাউকে করা হলে দল ভেঙে যেতে পারেন। রওশনকে বিরোধী দলের নেতা বানানোর যুক্তি হিসেবে তারা দেখাচ্ছেন রওশন এর আগের টার্মে বিরোধী দলের নেতা ছিলেন। বিরোধী দলের এমপিদের কাছে রওশনের একটি গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। তাছাড়া রওশন হলেন এরশাদের স্ত্রী। দলের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা তার অনুসারী।

সংশ্লিষ্টরা আরও বলছেন, জিএম কাদের জাতীয় পার্টির যোগ্য উত্তরসূরি। এইচএম এরশাদের অসমাপ্ত কাজ, তার স্বপ্ন আগামীতে জিএম কাদেরের নেতৃত্বেই বাস্তবায়ন হবে। জাতীয় পার্টি ও এরশাদ পরিবার একই সূত্রে গাঁথা। যারা নেতৃত্বকে কেন্দ্র করে পরিবারের মাঝে বিভেদ সৃষ্টির পাঁয়তারা চালাচ্ছেন তারা ভবিষ্যতে মীরজাফর হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবেন।

এরশাদের নয় বছরের রাষ্ট্র পরিচালনায় সফলতা এবং জিএম কাদেরের ক্লিন ইমেজের সমন্বয়ে জাপাকে আগামীতে ক্ষমতার দারপ্রান্তে নিয়ে যাবে। নেতাকর্মীরা চাইছেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অবর্তমানে দলের আস্থার প্রতীক জিএম কাদের জাপার হাল ধরুক। সংসদের বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদকেই নিজের যোগ্য উত্তরসূরি ভেবেছেন এরশাদ। প্রবীণ এই সংসদ তার অভিজ্ঞতা দিয়ে বিরোধী দলের এমপিদের পথনির্দেশনা দিক এটাই অসুস্থ হওয়ার আগে এরশাদের প্রত্যাশা ছিল। ছেলে সাদ এরশাদকে নিয়ে অসুস্থ এরশাদকে দেখতে যাওয়া এবং তার শয্যাপাশে কোরআন তেলাওয়াত করে রওশন নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেছেন। আর এরশাদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে প্রতিদিনই জানাচ্ছেন জি এম কাদের।

এরশাদের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে বায়তুল মোকাররম মসজিদে নামাজ শেষে গোলাম মোহাম্মদ কাদের সাংবাদিকদের বলেছেন, এরশাদের পেট থেকে ২০২ লিটার পানি বের করা হয়েছে। সেই দিক দিয়ে তিনি ভালো আছেন, তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।’ তিনি তার ভাইয়ের রোগমুক্তির জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

জিএম কাদের আরও বলেন, এরশাদকে ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে রক্ত দেওয়া হতে পারে। তাহলে তার শারীরিক অবস্থা মোটামুটি স্বাভাবিক হবে। তবে এটা বুঝতে হবে তাকে রাখা হয়েছে কৃত্রিমভাবে। তার শ্বাস-প্রশ্বাস থেকে অনেক কিছু কৃত্রিমভাবে চলছে। বিশেষ করে ওষুধ নির্ভর হয়ে চলছেন তিনি।’