সরব ধানমন্ডি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

তফসিলের পর দুই দলের কার্যালয়

সরব ধানমন্ডি

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:৪৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৮

print
সরব ধানমন্ডি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। গতকাল প্রথম দিনে উৎসবমুখর পরিবেশে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৭শর বেশি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। আওয়ামী লীগ আগেই ঘোষণা দিয়েছিল, শুক্রবার (৯ নভেম্বর) থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি করবে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল সকাল ১০টার দিকে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য ফরম সংগ্রহের মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। দলীয়প্রধান শেখ হাসিনার জন্য দুটি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন তিনি।

এর মধ্যে একটি প্রধানমন্ত্রীর নিজ এলাকা গোপালগঞ্জ-৩ আসনের জন্য। মনোনয়নপত্রটি কিনে তিনি আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লার কাছে হস্তান্তর করেন। আরেকটি আসন এখনো জানানো হয়নি। পরে জানানো হবে বলে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান। এ সময় গোপালগঞ্জ জেলা ও টুঙ্গিপাড়া আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর জন্যও একটি ফরম সংগ্রহ করা হয়েছে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষে ফরম কিনেছেন সংসদেও চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ। আর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের জন্য নোয়াখালী-৫ আসনের একটি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ ও সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম।

ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় এবং পাশের নির্বাচন পরিচালনা অফিসে ফরম বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি বলেন, প্রচ- আগ্রহ ও বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে আমাদের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। আগামীকাল ১১ নভেম্বর রোববার বিকাল সাড়ে ৩টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে দলের মনোনয়ন বোর্ডের সভা হবে। কত দিন মনোনয়ন ফরম বিতরণ করা হবে সেটা সেখানেই সিদ্ধান্ত হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তফসিলের পর তাদের (ঐক্যফ্রন্টের) আন্দোলন অযৌক্তিক। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর এখন দেশে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, পাবলিক এখন ইলেকশন মুডে আছে। সবাই এখন ইলেকশন করতে চায়। নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশে এখন একটা উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। এর বাইরে যারা নির্বাচনবিরোধী তৎপরতায় যাবেন জনগণই তাদের প্রতিরোধ করবে।

জানা গেছে, ৮টি বিভাগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ব্যক্তিদের কাছে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছে আওয়ামী লীগ। ধানমন্ডিতে দলটির বর্ধিত অফিসের দোতলা ও তৃতীয়তলা থেকে ফরম কিনছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। ফরমের মূল্য ৩০ হাজার টাকা।

বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদকরা মনোনয়ন বিতরণ কার্যক্রম তদারকি করছেন। ঢাকা বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সিলেট বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, রংপুর বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, খুলনা বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি এবং সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল-মাহমুদ স্বপন এমপি, বরিশাল বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি, রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি এবং ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

বেশ সকাল থেকেই মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতারা তাদের কর্মীদের নিয়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের দিকে যেতে থাকেন। বিভিন্ন জেলা শহর থেকে বাসভর্তি করে সমর্থকদের নিয়ে আসেন তারা। একে একে মিছিল নিয়ে কার্যালয়ের দিকে যেতে থাকেন। তবে কার্যালয়ের ভেতরে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে বেশি লোককে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। ফরম বিক্রি উপলক্ষে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয় এলাকায় ব্যান্ড পার্টি বাজানো হয়। অনেক মনোনয়নপ্রত্যাশীর মিছিলেই ব্যান্ড পার্টি ছিল। একই সঙ্গে ছিল মিছিল-স্লোগান। কার্যালয় এলাকাজুড়ে উৎসবের আমেজ দেখা দেয়।

আগামী নির্বাচন সামনে রেখে ৩০০ আসনে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি উদ্বোধন করা হয়। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম বিক্রি চলবে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ-৩ আসনের পাশাপাশি তার শ্বশুরবাড়ির এলাকা রংপুরের পীরগঞ্জ (রংপুর-৬) আসনে নির্বাচন করে জয়ী হন। পরে তিনি রংপুর-৬ আসনটি ছেড়ে দিলে উপ-নির্বাচনে ওই আসনের এমপি হন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

সর্বশেষ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট দুই হাজার ৬০৮ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনেছিল। এবার সেই সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন দলটির নেতারা। ফরম বিক্রি থেকে গত বার আওয়ামী লীগের তহবিলে জমা পড়েছিল প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা। এবার তা ছাড়িয়ে যাবে বলে দলটির নেতাদের প্রত্যাশা।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বর। ২০১৪ সালে নির্বাচন বর্জন করা বিএনপি এবার শেষ পর্যন্ত ভোটে আসবে ধরে নিয়ে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। টানা তৃতীয়বারের মতো জয়ের টার্গেট নিয়ে এগোচ্ছে দলটি। এ জন্য নির্বাচনী কার্যক্রমও সবার আগে শুরু করেছে আওয়ামী লীগ।