৩০ বছর ধরে খাল খনন

ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২ আশ্বিন ১৪২৮

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

৩০ বছর ধরে খাল খনন

খোলা কাগজ ডেস্ক
🕐 ১২:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০

৩০ বছর ধরে খাল খনন

পানির অভাবে গ্রামের জমিগুলো শুষ্ক হয়ে থাকত। ফসলও ভালো হতো না। এ কারণে পাহাড় থেকে গড়িয়ে পড়া বৃষ্টির পানি ক্ষেত পর্যন্ত পৌঁছে দিতে খাল খননের সিদ্ধান্ত নেন গ্রামেরই এক ব্যক্তি।

 

দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে জমিতে সেচের জন্য একাই তিনি ৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে খাল খনন করেন। অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘাটেছে বিহার রাজ্যের গয়া জেলার প্রত্যন্ত এক গ্রামে। ওই ব্যক্তির নাম লাঙ্গি ভুইয়া। তিনি গয়ার কোথিলওয়া গ্রামে বসবাস করেন।

গয়া শহর থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে কোথিলওয়া গ্রামটি ঘন জঙ্গল এবং পাহাড় দ্বারা বেষ্টিত। মাওবাদী সম্প্রদায়ের লোকেরাই গ্রামের বাসিন্দা। এখানকার মানুষের জীবিকার প্রধান উৎস কৃষিকাজ ও পশুপালন। বর্ষাকালে পাহাড় থেকে পানি গড়িয়ে নদীতে মিশে যাওয়ায় ক্ষেতে সেচের সমস্যা হতো।

এ কারণে লাঙ্গি ভুইয়া গ্রামের ভেতর দিয়ে খাল খননের কথা ভাবেন। তিনি জানান, খালটি কাটতে তার ৩০ বছর লেগেছে। এখন এ পানি খালের মাধ্যমে গ্রামের পুকুরে পৌঁছে যাচ্ছে। ৩০ বছর ধরে তিনি গবাদি পশুর যত্ন নেওয়ার জন্য কাছের জঙ্গলে যেতেন। পাশাপাশি খাল কাটার কাজ করতেন।

তিনি বলেন, এ কাজের জন্য গ্রামের কেউ আমাকে সাহায্য করেনি। বেশিরভাগ মানুষ জীবিকা অর্জনের জন্য শহরে চলে গেছে। তবে আমি এখানে থাকার সিদ্ধান্তে অটল থেকেছি। ওই গ্রামের এক বাসিন্দা জানান, গত ৩০ বছর ধরে লাঙ্গি ভুইয়া একাই খালটি খননের কাজ করেছেন। খাল এখন গ্রামের সব পশু-পাখির উপকারে লাগবে। সেই সঙ্গে সব জমিতে সেচের কাজও করা যাবে। লাঙ্গি ভুইয়া এ কাজ নিজের সুবিধার জন্য করেননি বরং পুরো এলাকার জন্য করছেন।

 

 
Electronic Paper