কুকুর বিড়ালের রবিনহুড

ঢাকা, শনিবার, ৩০ মে ২০২০ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

কুকুর বিড়ালের রবিনহুড

বিবিধ ডেস্ক ৭:০২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৮, ২০২০

print
কুকুর বিড়ালের রবিনহুড

সাততলা বিল্ডিংয়ের কার্নিসে বিড়াল আটকা পড়েছে। খবর পেয়ে ছুটে গেলেন তিনি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেয়াল বেড়ে নামলেন। বিড়ালটিকে কেবল উদ্ধারই করলেন না, বাড়িতে নিয়ে গেলেন। সেবা যতœ করে সুস্থ করে তুললেন। রাস্তায় আহত কুকুর পড়ে আছে। মুখের ওপর দিয়ে গাড়ি চলে গেছে। অসুস্থ কুকুরটিকে কোলে তুলে নিলেন। নিজের খরচে চিকিৎসা করালেন। এভাবেই কুকুর-বিড়ালের সেবায় নিজেকে সঁপে দিয়েছেন আফজাল খান। ভালোবেসে মানুষ তাকে রবিনহুড বলে। অবলা প্রাণীর প্রতি আফজালের মমত্ববোধ যেন রবিনহুডকে স্মরণ করিয়ে দেয়।

রাজধানীর খিলগাঁওয়ের সবুজবাগ থানার তিলপাপাড়ায় আফজাল বসবাস করেন। আফজাল সব সময় মানুষের জন্য কিছু করতে চাইতেন। নানা কারণে তা হয়ে ওঠেনি। কেমন করে জানি অসহায় বিপদগ্রস্তÍ কুকুর বিড়ালের প্রেমে জড়িয়ে গেলেন। প্রাণীপ্রেমের এক অনন্য দৃষ্টান্ত গড়েছেন তিনি। ছোটবেলা থেকেই আফজাল পশুপাখি ভালোবাসেন। তখন কলেজে পড়েন। রাস্তা থেকে একদিন একটা বিড়াল নিয়ে এলেন। বিছানার নিচে বিড়ালটিকে লুকিয়ে রাখলেন। ভাবলেন সবাই কী না কী বলে। পরে অবশ্য তার প্রাণীপ্রেমে পরিবার সাপোর্ট দিয়েছে। 

আফজালের কাজে সহায়তা করেন তার বোন তায়ইবা নাসরিন রাকা। প্রতিদিন দুবার খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। ভাত ও মাংস থাকে। রবিনহুড দ্য এনিমেল রেসকিউয়ার ফেসবুকে আফজালের গ্রুপের নাম। তাদের সব কর্মকা-ের আপডেট এখানে আছে। এ পর্যন্ত আফজাল ও তার সংগঠন ৬০০টিরও বেশি কুকুর বিড়াল উদ্ধার করেছেন। সব মিলিয়ে প্রায় ৫৬টি কুকুর বিড়াল তার বাসায় আশ্রয়ে রয়েছে। প্রত্যেকটি কুকুর বিড়ালের রয়েছে একটি ইতিহাস। কোনটা গাড়ির নিচে চাপা পড়েছে। কোনটা হাত পা ভাঙা।

পাভেল ইসলাম। ট্রাস্টি বোর্ড মেম্বার, এনিমেল কেয়ার ট্রাস্ট বাংলাদেশ। তিনি বলেন, কুকুর বিড়ালের নাড়িভুড়ি বের হয়ে পড়ে আছে। গায়ে দগদগে ঘা। মানুষ নাক সিটকায়। আফজাল এসব প্রাণীকে কাছে টেনে নেয়। নিজে ধরে সেবা যতœ করে সুস্থ করে তোলে। আফজালের পশুপ্রেম আমাদের মুগ্ধ করে।

২০১৮ সালের শেষের দিকে । পাভেল ভাবলেন, কীভাবে আফজালের কাজকে সহায়তা করা যায়। একটা গোছানো প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসা যায়। গঠন করা হলো এনিমেল কেয়ার ট্রস্ট। প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান আফজাল খান। আফজালের সঙ্গে কাজে যে কেউ যুক্ত হতে পারে । জানালেন সাজ্জাদ মো. জুবায়ের, সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক।

আফজাল যখন বাসায় ফেরেন কুকুর বিড়ালগুলো ছুটে আসে। হামলে পড়ে তার ওপর। তার আদর পেতে চায়। খুঁনসুটি করে। এটাই আফজালের সুখ। শহরের বেওয়ারিশ কুকুর বিড়ালগুলো একটা অভয়ারণ্যে ছেড়ে দিয়ে আসতে চান আফজাল। সেখানে তারা তাদের মত করে বাঁচুক।

পক্ষাগ্রস্তÍদের জন্য একটা আশ্রয়কেন্দ্র করবেন। সেখানে ওদের দেখশোনা করার জন্য একজন চিকিৎসক থাকবেন। এটুকুনই আফজালের স্বপ্ন।