জরাজীর্ণ রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

জ্ঞানচর্চা ও ঐতিহ্যের পাঠাগার

জরাজীর্ণ রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি

সুশান্ত ভৌমিক ১:৪৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

print
জরাজীর্ণ রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি

রংপুর অঞ্চলের অন্যতম ও প্রাচীনতম ভবনগুলোর একটি রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি ভবন। আনুমানিক ১৬৫ বছর আগে ভবনটি নির্মিত হয়েছে। কালের বিবর্তনে বহু স্মৃতিবিজড়িত রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি ভবনটি এখন সংস্কার অভাবে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে।

শতবর্ষী পাবলিক লাইব্রেরি ভবনটি দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। রীতিমতো হুমকির মুখে। তারপরও পুরনো ভবনটি ঘিরে হয়ে আসছে নানান আয়োজন। বিভিন্ন সংগঠন প্রায়ই সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করছে ঝুঁকিপূর্ণ এ ভবনে।

বর্তমানে এর পেছনেই নির্মিত হয়েছে অত্যাধুনিক শিল্পকলা একাডেমি ভবন। এর পাশে রংপুর টাউন হল। রয়েছে বিভাগীয় সরকারি গণগ্রন্থাগার। তবে শিল্পকলা একাডেমির নতুন ভবনটির আড়ালে পড়ে গেছে পাবলিক লাইব্রেরি ভবন। অথচ এ পাবলিক লাইব্রেরি ভবনেরই একটি অংশে রয়েছে বর্তমান বাংলাদেশ ভূখণ্ডের সাহিত্যচর্চার বাতিঘর হিসাবে খ্যাত ‘রংপুর সাহিত্য পরিষদ’ কার্যালয়।

১৮৯৩ সালে কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত ‘বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ’-এর কলকাতার বাইরে প্রথম শাখা হিসেবে ১৯০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘রংপুর সাহিত্য পরিষদ’। ভারতীয় উপমহাদেশের সাহিত্যচর্চায় রংপুর সাহিত্য পরিষদ গৌরবময় ইতিহাসের সাক্ষী।

বিভিন্ন সময়ে জমিদার ও রাজাদের আগ্রহে ‘রংপুর সাহিত্য পরিষদ’ নিজস্ব কার্যালয় ‘মহিমা রঞ্জন সারস্বত ভবন’ নির্মাণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরবর্তীকালে ১৯১৩-১৯১৪ সালে নির্মাণ কাজ শেষ হয়। প্রাথমিক খরচ ধরা হয়েছিল ৭৫ হাজার টাকা। কিন্তু আসলেই কত টাকা খরচ হয় তার হিসাব জানা যায় না।

ইংরেজ আইসিএস অফিসার ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের প্রস্তাবে মহিমা রঞ্জন স্মৃতি ভবনের নাম পরিবর্তন করে এডওয়ার্ড মেমোরিয়াল হল করা হয়।