বইমেলার বিশ্বায়ন, বিশ্বজুড়ে বাংলা বই

ঢাকা, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০ | ২১ চৈত্র ১৪২৬

বইমেলা : দেশে ও বিদেশে

বইমেলার বিশ্বায়ন, বিশ্বজুড়ে বাংলা বই

অমিত গোস্বামী ৯:৪১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০

print
বইমেলার বিশ্বায়ন, বিশ্বজুড়ে বাংলা বই

বইমেলা বলতেই বুঝি ঢাকা ও কলকাতা বইমেলা। কিন্তু তার বাইরেও যে বইমেলা হয় তার খোঁজ অনেকেই রাখি না। আজ সেই গল্পে আসা যাক। এ বিশ্বে ১৮০২ সালে ম্যাথু কেরির উদ্যোগে প্রথম বইমেলার আসর বসে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে।

১৮৭৫ সালে প্রায় ১০০ জন প্রকাশক মিলে নিউইয়র্কের ক্লিনটন শহরে আয়োজন করে বৃহৎ এক বইমেলার। ওই মেলায় প্রদর্শিত হয়েছিল প্রায় ৩০ হাজার বই। ১৯৪৯ সালে শুরু হয় জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টের বৃহৎ বইমেলা, যা পরবর্তী সময়ে আন্তর্জাতিক বইমেলায় রূপ নেয়। এ মেলায় নিয়মিত বাংলাদেশ ও ভারতের প্রকাশকরাও অংশগ্রহণ করেন।

ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলা ৫০০ বছরেরও বেশি পুরনো। শুরু হয়েছিল পঞ্চদশ শতকে। মুদ্রণ যন্ত্র আবিষ্কারক ইয়োহানেস গুটেনবার্গ থাকতেন ফ্রাঙ্কফুর্টের সামান্য দূরের মেঞ্জ শহরে। তার আবিষ্কৃত ছাপাখানার যন্ত্র বইয়ের জগতে নিয়ে আসে বৈপ্লবিক পরিবর্তন। তিনি নিজের ছাপাখানার যন্ত্রাংশ এবং ছাপানো বই বিক্রির জন্য ফ্রাঙ্কফুর্টে আসেন। গুটেনবার্গের দেখাদেখি ফ্রাঙ্কফুর্ট শহরের স্থানীয় কিছু বই বিক্রেতাও তাদের প্রকাশিত বই নিয়ে বসতে থাকেন।

বই কিনতে বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষও আসতে শুরু করে। সেই আসা-যাওয়া থেকেই জমে উঠতে থাকে ফ্রাঙ্কফুর্টের বইমেলা। লন্ডন বইমেলা শুরু হয় ১৯৭৬ সাল থেকে। সব মিলিয়ে মেলার মেয়াদ ১২ দিন। মেলা আয়োজনের প্রথম দিকে এর মেয়াদ ছিল সাত দিন। প্রকাশিতব্য বইয়ের প্রচারের জন্য, অন্য প্রকাশক থেকে বইয়ের স্বত্ব অথবা বইয়ের অনুবাদ স্বত্ব কেনাবেচার জন্য প্রকাশকরা এ মেলায় অংশ নেন।

এটি প্রকৃত অর্থে প্রকাশকদের মেলা। এখানে সাধারণ পাঠকের অংশগ্রহণ নেই বললেই চলে। ২০০৬ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে আয়োজিত হচ্ছে ব্রুকলিন বইমেলা। অন্যান্য বইমেলার মতো এখানেও বড়দের পাঠের দিকেই প্রধানত নজর দেওয়া হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে আগস্টে চলে দেশটির জাতীয় বইমেলা। এটি আয়োজন করে লাইব্রেরি অব কংগ্রেস। কায়রো আন্তর্জাতিক বইমেলা আরব বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ বইমেলা। এর আয়োজক জেনারেল মিসরীয় বুক অর্গানাইজেশন। এ বইমেলা শুরু হয়েছে ১৯৬৯ সালে। কায়রোর ইন্টারন্যাশনাল ফেয়ার গ্রাউন্ডসে মেলাটি অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি বছর এ মেলায় তিন লাখেরও বেশি দর্শনার্থী আসেন।

তেহরান আন্তর্জাতিক বইমেলা তেহরানে বিগত ২৪ বছর ধরে আয়োজন হয়ে আসছে। প্রতি বছর মে মাসের ৪ থেকে ১৪ তারিখ পর্যন্ত মেলা অনুষ্ঠিত হয়। লেখক-পাঠক আর গ্রন্থানুরাগীদের ভিড়ে বইমেলা অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণ। আগরতলা বইমেলা ১৯৮১ সালে আগরতলা বইমেলা সরকারিভাবে শুরু হলেও অনেকের মতে, ১৯৬১ সালে বিলোনিয়া বিদ্যাপীঠ স্কুলের মাঠে প্রথম এ বইমেলার আয়োজন হয়েছিল।

১৯৮১ সালের ৩০ মার্চ সরকারি সহায়তায় রবীন্দ্রশতবার্ষিকী ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। এ মেলায় বাংলাদেশি প্রকাশক, লিটল ম্যাগাজিনকর্মীরাও অংশগ্রহণ করেন।

দিল্লিতে প্রতি বছর হয় বাংলা বইমেলা। পাঁচদিনের বইমেলায় উদ্যোক্তা ‘বেঙ্গল অ্যাসোসিয়েশন’। বাংলার বাইরে এটা দ্বিতীয় বৃহত্তম বইমেলা, যেখানে কলকাতা, বাংলাদেশ, ত্রিপুরা ও দিল্লির প্রকাশকরা প্রায় ৩০ হাজার বাংলা বইয়ের পসরা নিয়ে আসেন। বাড়তি জায়গার জন্য নয়াদিল্লির কালীবাড়ি থেকে সরে গিয়ে গতবার থেকে বইমেলা করা হচ্ছে গোল মার্কেটের কাছে পেশোয়া রোডে গৃহ কল্যাণ কেন্দ্রের চত্বরে।

পৃথিবীতে এখন পঞ্চাশটির মতো আন্তর্জাতিক বইমেলা হয়। গত তিন দশকে এশিয়া প্যাসিফিক দেশগুলোতেও আন্তর্জাতিক বইমেলার সূচনা ঘটেছে। তবে আন্তর্জাতিক বইমেলা আমরা কাকে বলব? এ বিষয়ে একটি মোটামুটি স্বীকৃত সংজ্ঞা হলো, যদি কোনো বইমেলার প্রধান কাজই হয় নানান দেশের লেখকদের বইপত্র প্রকাশের স্বত্ব কেনাবেচার চুক্তি; পাশাপাশি বইয়ের বাণিজ্যকে গুরুত্ব দিয়ে আনুষঙ্গিক কাজকর্ম সম্পন্ন করা হলে তাকে একটি আন্তর্জাতিক বইমেলা বলা যেতে পারে।

এ ছাড়াও পৃথিবীর নানা প্রান্তে আরও অনেক বইমেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে। সেগুলোর মধ্যে স্কটল্যান্ডের উইগটন বইমেলা, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের পিইএন ওয়ার্ল্ড ভয়েসেস ফেস্টিভ্যাল, যুক্তরাজ্যের ওয়ার্ডস বাই দ্য ওয়াটার ফেস্টিভ্যাল, সিডনি রাইটার্স ফেস্টিভ্যাল বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।