অতিথি পাখির আগমন

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট ২০২০ | ২০ শ্রাবণ ১৪২৭

অতিথি পাখির আগমন

বিবিধ ডেস্ক ৩:২১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯

print
অতিথি পাখির আগমন

শীতকালে আমাদের অতিথির কথা আমরা সবাই কমবেশি জানি। প্রতিবছর শীতকাল এলেই আমাদের আশপাশের বিভিন্ন জলাশয়, খাল-বিল, হাওড়, পুকুর ভরে যায় নানা রঙ-বেরঙের নাম না জানা পাখিতে। এসব পাখিই আমাদের অতিথি পাখি।

পাখি বিশেষজ্ঞদের মতে, পৃথিবীতে প্রায় ৫ লাখ প্রজাতির পাখি আছে। এসব পাখিদের মধ্যে অনেক প্রজাতিই বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় অন্য দেশে চলে যায়। সেসব দেশ বরফে ঢেকে যাওয়ায় এতই ঠা-া আবহাওয়া থাকে যে আমাদের দেশ শীতকাল সেই পাখিদের জন্য অনেক আরামদায়ক। শুধু ইউরোপ আর এশিয়ায় প্রায় ৬০০ প্রজাতির অতিথি পাখি রয়েছে। এসব পাখি আমাদের দেশে প্রতিবছর বেড়াতে আসে।

প্রতিবছরের মতো এবারও আমাদের দেশে অতিথি পাখির আগমন হয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিভিন্ন খাল, বিল, পুকুর, হ্রদ, নদী অববাহিকায় এবারের শীতেও প্রচুর পরিমাণ বিদেশি পাখির বিচরণ ইতোমধ্যে লক্ষ করা গেছে। অতিথি পাখির বিচরণস্থান হিসেবে আগে যেসব জায়গা পরিচিত, এবারের শীতে সেসব জায়গাগুলোর অধিকাংশই অতিথি পাখিদের কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠছে।

তার মধ্যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে, নীলফামারী জেলার নীলসাগর দীঘিতে, দেশের সর্ববৃহৎ হাওর হাকালুকিতে, বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের বাইক্কা বিলে প্রভৃতি স্থানে শীতের হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠেছে। দেশের সর্ববৃহৎ হাওর হাকালুকিতে আসা শুরু করেছে শীতের অতিথি পাখি। পাখি দেখতে ছুটে আসছে বিভিন্ন স্থান থেকে অসংখ্য পাখিপ্রেমী। বসেছে দর্শনার্থীদের মিলনমেলা। শীতের অতিথি পাখিরা কিচিরমিচির ডাক আর পাখা নাচিয়ে উড়াল দিয়ে পানিতে ভেসে বেড়ানোর খেলায় মেতে উঠছে।

পৌষ মাঘ মাসে সচরাচর যেসব পাখি দেখা যায় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- লেঞ্জা, কুস্তি হাঁস, জিরিয়া হাঁস, নীলশির, গ্যাডওয়াল, লালশির, পাতারি হাঁস, বামনীয়া, ভুটি হাঁস, কালো হাঁস, চখাচখি, বালি হাঁস, বড় সরালী, ছোট সরালী, রাজহাঁস, কানি বক, ধূসর বক, গো বক, সাদা বক, ছোট বক, মাঝলা বক, কালেম বা কায়েন, জল ময়ূর, ডুবুরি, খোপা ডুবুরি, ছোট পানকৌড়ি, বড় পানকৌড়ি, শামুক ভাঙ্গা বা শামুক খোলা, কালো কুট, কাদা খোঁচা বা চ্যাগা, জলের কাদাখোঁচা পাখি, ছোট জিরিয়া, বাটান, চা পাখি, সবুজ পা, লাল পা পিও, ল্যাঞ্জা হাঁস, সাদা বক, দলপিপি, পানমুরগি, কাস্তেচড়া, বেগুনিকালেম, পানকৌড়ি, ঈগল প্রভৃতি।

আমাদের সবার সবার উচিত শীতের এই অতিথিদের যথাযথ সম্মান করা। তাদের সঙ্গে অনুচিত আচরণ না করা। না হয় অতিথির এই সুদৃশ্য আগমন এবং মেলা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।