চার সন্তানের সংসার

ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬

আলো আঁধারীর এরশাদ

চার সন্তানের সংসার

বিবিধ ডেস্ক ১১:২২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯

print
চার সন্তানের সংসার

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কর্মজীবন, রাজনীতি ও বৈবাহিক জীবন নিয়ে গল্প-গুজবের যেন অন্ত নেই। তার ছেলেমেয়ের সংখ্যা নিয়ে অনেকের অনেক রকম মন্তব্য। তবে এরশাদ তার জীবনী গ্রন্থ ‘আমার কর্ম আমার জীবন’-এ তার তিন ছেলে এক মেয়ে রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।

এরশাদ জানিয়েছেন, তার সবচেয়ে বড় মেয়ে মাহজাবিন (জেবিন)। দেশে লেখাপড়ার পর লন্ডনে গিয়ে শিক্ষাজীবন শেষ করেন। মেয়ে সাবিতা ও ছেলে নিকো জলিকে নিয়ে জেবিনের ছোট্ট সংসার। তবে জেবিনের মায়ের নাম উল্লেখ করেননি এরশাদ। আর এরশাদের ছেলেদের মধ্যে সবার বড় রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ। জন্ম হয় ১৯৮৩ সালে।

সাদ প্রথমে আমেরিকান স্কুলে লেখাপড়া করেন। গ্র্যাজুয়েশন শেষে মালয়েশিয়ায় ব্যবসা করছেন। ১৯৯০ সালে এরশাদের সঙ্গে জেবিন ও সাদকেও আটক করা হয়েছিল। আড়াই বছর পর হাজত থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন তারা। গ্রন্থে আলম নামে আরেক পুত্রের নাম উল্লেখ করেছেন এরশাদ। আলম সম্পর্কে তিনি বলেছেন, ‘সে আমার ঠিক ঔরসজাত সন্তান নয়, তবে তার চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়।’

এরিক হচ্ছেন এরশাদের কনিষ্ঠ সন্তান। বিদিশার গর্ভে তার জন্ম হয়েছে ২০০১ সালের ১১ মার্চ। বিদিশা-এরশাদের বিচ্ছেদ হলে এরিক বিদিশার কাছেই বেড়ে ওঠেন। এরিক সম্পর্কে এরশাদ লিখেছেন, ‘পুত্র এরিক স্কুলে পড়াশোনার পাশাপাশি সংগীতকে বেছে নিয়েছেন। আধুনিক, রবীন্দ্র-নজরুলগীতি সবই প্রিয়। মা ছাড়া একজন সন্তানকে মানুষ করে তোলা যে কী কষ্টের, তা আমি তাকে দিয়েই উপলব্ধি করেছি। দিনে-রাতে বেশির ভাগ সময় রাজনৈতিক কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত থাকায় ও আমার সান্নিধ্য থেকে বঞ্চিত হয়েছে।’ এরশাদ তার ঠাকুরগাঁওয়ের কৃষি জমি অনেক আগেই এতিমদের নামে লিখে দিয়েছেন। অবশিষ্ট সব স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি সম্প্রতি ট্রাস্টের নামে লিখে দিয়েছেন।

এ ট্রাস্টের নামে রয়েছে ১৫ কোটি টাকার এফডিআর, রংপুরের পদাগঞ্জে অবস্থিত পল্লীবন্ধু কোল্ড স্টোরেজ, বারিধারার ফ্ল্যাট (প্রেসিডেন্ট পার্ক), গুলশানের ফ্ল্যাট, বনানী বিদ্যানিকেতনের বিপরীতে অবস্থিত একটি ফ্ল্যাট, বনানী ইউআই শপিং কমপ্লেক্সের দুটি দোকান, রংপুর শহরে ৬৫ শতক জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত বাসভবন ‘পল্লীনিবাস’ ও নিজের নামে কেনা পাঁচটি গাড়ি। জীবনীতে তিন ছেলে এক মেয়ে উল্লেখ করলেও তাদের জন্য কোনো স্বত্ব রাখা হয়নি ট্রাস্টে।

এ বিষয়ে এরশাদের ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, ওই ছেলেমেয়েদের তিনি প্রতিষ্ঠিত করে দিয়েছেন। আর সাদের মা রওশন এরশাদের রয়েছে অঢেল সম্পদ। যা তিনি উত্তরাধিকার সূত্রেই পাবেন।