বিভিন্ন ধর্মের রোজা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ | ৬ আষাঢ় ১৪২৬

দেশে দেশে রোজার বৈচিত্র্য

বিভিন্ন ধর্মের রোজা

বিবিধ ডেস্ক ৩:৪৭ অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০১৯

print
বিভিন্ন ধর্মের রোজা

ইসলাম ধর্ম : ইসলামে রমজান মাসের ২৯ বা ৩০ দিন (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) রোজা রাখেন মুসলিমরা। এ ছাড়াও পবিত্র শবেবরাত, শবে মেরাজসহ বিভিন্ন ধর্মীয় দিবসে রোজা রাখেন। তারা ফজর থেকে মাগরিব পর্যন্ত খাবার, পানীয় ও যৌনকর্ম থেকে নিজেদের বিরত রাখেন।

খ্রিস্টান ধর্ম : অ্যাশ ওয়েনেসডে ও গুড ফ্রাইডেতে রোজা রাখেন খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা। এ ছাড়া ইস্টার সানডের আগের দিন প্রায় ৪০ দিন শুক্রবারগুলোতে মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকেন।

হিন্দু ধর্ম : বেদে বলা হয়েছে, চন্দ্রমাসের একাদশীর দিন পুরোটাই উপবাস করতে হবে। বর্তমান হিন্দু ধর্মে প্রতিটি পূজায় ব্রতী পূজারি ও অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা নারী-পুরুষ উপবাস করে থাকেন। এ ছাড়াও অমাবস্যা ও পূর্ণিমা ইত্যাদি তিথিতে উপবাস করেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা।

বৌদ্ধ ধর্ম : মূলত, পূর্ণিমা ও অন্য ধর্মীয় দিনগুলোতে তারা উপবাস করেন। বৌদ্ধ ধর্মে উপবাস করা হয় মূলত, রসনা নিয়ন্ত্রণ ও ভোগ থেকে নিজেকে বিরত রাখার কৌশল হিসেবে। বৌদ্ধ আত্মনিয়ন্ত্রণের কৌশলকে বলে ‘ধুতাঙ্গা’।

ইহুদি ধর্ম : ইহুদি ধর্মে রোজা শোক ও বেদনার প্রতীক। ইয়োম কিপ্পুর বা প্রায়শ্চিত্তের দিন হলো ইহুদি ধর্মের সবচেয়ে পবিত্র দিন। এদিন ২৫ ঘণ্টা ধরে উপবাসে থাকেন ইহুদি ধর্মের অনুসারীরা।

জৈন ধর্ম : জৈন ধর্মে উপবাস কয়েক প্রকার। পূর্ণ উপবাস অর্থাৎ একটা নির্দিষ্ট সময় খাদ্য পানীয় স্পর্শ না করা। আংশিক উপবাস অর্থাৎ ক্ষুধা নিবারণের জন্য যতটুকু প্রয়োজন তার চেয়েও কম খাওয়া।